সংবাদ শিরোনাম

পণ্যবাহী ট্রাক-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১খালেদার জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি নেই, হয়নি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্তওপ্রধানমন্ত্রী কোরআন-সুন্নাহর বাইরে কিছু করেন না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীমির্জাপুরে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে মোমবাতি প্রজ্জ্বলনশনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনাস্পুটনিক-৫ টিকা একে-৪৭’র মতো নির্ভরযোগ্য: পুতিনডোপটেস্টো রিপোর্ট: স্পিডবোটের চালক শাহ আলম মাদকাসক্তচাঁদপুরে ঐতিহাসিক বড় মসজিদে লক্ষাধিক মুসল্লির সালাতে ‘জুমাতুল বিদা’ রাঙামাটিতে ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ দুই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী আটক! আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ : নারীসহ ৯জন আহত

  • আজ ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

হেলিকপ্টারে ঢাকায় আনা হলো ডা. মাসুদকে, মুগদা হাসপাতালে ভর্তি

১১:৫২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৩, ২০২০ ঢাকা
masud

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক (ইউরোলজি বিভাগ) ডা. মাসুদ আহমেদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকায় এনে একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার রাত ১০টার কিছু সময় পর রাজধানীর তেজগাঁও পুরাতন বিমানবন্দরে মাসুদকে বহনকারী বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার অবতরণ করে। সেখান থেকে তাকে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। এর আগে রাত রাত ৯টা ২০ মিনিটে খুলনা থেকে মাসুদকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়।

জানা গেছে, ডা. মাসুদের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় গত ১৮ এপ্রিল। করোনা পজেটিভ হওয়ার পর খুলনায় চিকিৎসাধীন ছিলেন মাসুদ। এরপর তিনি খুলনা ডায়বেটিক হাসপাতালে আইসোলিশনে ছিলেন। শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় জেলা প্রশাসককে বিষয়টি জানানো হয়। এরপরই সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তে তাকে ঢাকার আনার সিদ্ধান্ত হয়।

রাতে খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন গণমাধ্যমে জানান, মাসুদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দ্রুত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তার সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়। সরকারের একান্ত সদিচ্ছা এবং খুলনা জেলা প্রশাসকের সমন্বয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

ডা. মাসুদ আহমেদ জাতীয় দলের ক্রিকেটার এবং নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফী বিন মুর্তজার নানির খালাতো ভাই।

এর আগে গত ৯ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হন সিলেটের এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দিন। সেখানে গুরুতর অবস্থায় চিকিৎসা না পাওয়ায় তিনি নিজেই আইসিইউ সুবিধাসহ হেলিকপ্টার বা অ্যাম্বুলেন্স চাইলেও সরকারিভাবে তা দেওয়া হয়নি। পরে নিজ ব্যবস্থায় সাধারণ অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা কুর্মিটোলা হাসপাতালে এসে ভর্তি হলেও ১৫ এপ্রিল তার মৃত্য হয়। ডা. মঈন উদ্দিনের এমন মৃত্যুর ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন দেশের চিকিৎসকরা। এরপর থেকে চিকিৎসক দের বিষয়টি সতর্কতার সঙ্গে দেখছে সরকার।