সীমিত পরিসরে খুলছে পোশাক কারখানা

১১:১৫ অপরাহ্ন | শনিবার, এপ্রিল ২৫, ২০২০ অর্থনীতি
ban

অর্থনীতি ডেস্কঃ পোশাক কারখানা সীমিত পরিসরে চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৈরি পোশাক রফতানিকারক দের সংগঠন বিজিএমইএ। শনিবার (২৫ এপ্রিল) বিজিএমইএর ওয়েবসাইটে সংগঠনের সদস্যদের উদ্দেশ্যে দেয়া এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়।

বার্তায় বলা হয়েছে, ‘অর্থনীতির চাকা সচল রাখার জন্য সামগ্রিক বিবেচনায় বিজিএমইএ আপনাকে জোনভিত্তিক, সীমিত পরিসরে কারখানা খোলার পরামর্শ দেবে সরাসরি। এর আগে শ্রমিকদের ঢাকায় না আনার জন্যও সদস্যগণকে পরামর্শ দেওয়া হলো।’

বার্তায় বিজিএমইএ সদস্যদের উদ্দেশে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, ‘সেইসব কর্মীদের নিয়ে কারখানা চালু করুন, যারা কারখানার নিকটবর্তী স্থানে বসবাস করেন।’

বার্তায় আরও বলা হয়েছে, ‘মানবিক কারণে শ্রমিকদের ছাঁটাই না করার জন্য সদস্যদের অনুরোধ করা যাচ্ছে। অনুপস্থিত শ্রমিককে এপ্রিল মাসের বেতন পৌঁছে দেওয়া হবে।’

এতে বলা হয়, ‘পরামর্শ অনুযায়ী কারখানা খোলার তারিখ ও প্রটোকল দৃঢ়তার সঙ্গে প্রতিপালন করার অনুরোধ করছি।’

সদস্যদের উদ্দেশে বিজিএমইর নির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে ওই বার্তায় বলা হয়, যে কোনও পরিস্থিতিতে শ্রমিকরা কারও সমর্থন ছাড়াই নিয়মবহির্ভূতভাবে ঢাকায় চলে এলে সংগঠন থেকে সদস্যদের সহযোগিতা দেওয়া সম্ভব হবে না।

এর আগে বিজিএমইএর এক নির্দেশনায় জানানো হয়, অর্থনীতি‌কে চলমান রাখতে সার্বিক পরিস্থিত বিবেচনায় পোশাক কারখানা খোলা রাখার নির্দেশনা দে‌বে বিজিএমইএ। সেই নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত যেসব শ্রমিক গ্রামে আছে, তাদের ঢাকায় আসতে না বলার জন্য অনুরোধ করা হলো।

এদিকে শনিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে মতিঝিলে এফবিসিসিআই কার্যালয়ে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ব্যবসায়ীদের গঠিত টাস্ক ফোর্সের প্রধান এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, দেশের অর্থনীতি সচল রাখতে সীমিত পরিসরে হলেও কারখানা চালু করা দরকার। তা নাহলে উন্নয়নের ভারসাম্য ধরে রাখা অসম্ভব হবে।

উল্লেখ্য করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে আগামী ২৬ এপ্রিল থেকে ৫ মে পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। সাধারণ ছুটির সময় গণপ‌রিবহন বন্ধ থাক‌বে।‌ এমন প‌রি‌স্থি‌তি‌তে গ্রা‌মে চ‌লে যাওয়া শ্রমিকদের কাজে যোগ দিতে মা‌লিকরা যেন বাধ্য না ক‌রে সেজন্য বিজিএমইএ নির্দেশনা দি‌য়ে‌ছে।