মে মাসেই বাংলাদেশ থেকে করোনার বিদায়: সিঙ্গাপুরের গবেষণা

৫:৪৩ অপরাহ্ন | সোমবার, এপ্রিল ২৭, ২০২০ ফিচার
coronabd

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মে মাসে বিদায় নেবে ৯৭ শতাংশ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা পরিচালিত ডাটা বিশ্লেষণ করে এমনটাই পূর্বাভাস দিয়েছেন সিঙ্গাপুর ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি অ্যান্ড ডিজাইনের (এসইউটিডি) গবেষকরা।

রোববার (২৬ এপ্রিল) নিজেদের ওয়েবসাইটে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাস বিস্তারের ধরন, বৈশিষ্ট্য, মানবদেহে এর প্রভাবসহ বিভিন্ন প্যারামিটার হিসেব করে ১৩১টি দেশে করোনার স্থায়ীত্বকাল বিষয়ক পূর্বাভাস প্রকাশ করে এসইউটিডি। গবেষণাকাজে সাসেপটিবল ইনফেক্টেড রিকাভারড (সার) মডেল ব্যবহার করেছে তারা।

এ মডেলের ওপর ভিত্তি করে চালানো গবেষণা অনুসারে, চলতি বছরের ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে সারা বিশ্ব থেকে করোনা নির্মূল হবে বলে পূর্বানুমান করা হচ্ছে। এই প্রথম করোনা নির্মূল সংক্রান্ত এ ধরনের পূর্বাভাস এলো।

মডেলে দেখা যায়, বিশ্বব্যাপী দিন দিন করোনার প্রকোপ কমে আসছে। বিভিন্ন দেশ থেকে পাওয়া তথ্য, গবেষণা, ও করোনা ভাইরাসের আয়ুষ্কাল বিষয়ক নানান উপাত্তে ভর দিয়ে এ পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

এসইউটিডির পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ভারতে করোনার সংক্রমণ ২১ মে’র মধ্যে ৯৭ শতাংশ কমে যাবে। যুক্তরাষ্ট্রে ১১ মের মধ্যে ৯৭ শতাংশ কমে যাবে এবং ইতালিতে ৭ মে’র মধ্যে কমবে ৯৭ শতাংশ সংক্রমণ।

গাণিতিক মডেলের ওপর ভিত্তি করে এসইউটিডি বলছে, বাংলাদেশে করোনাভাইরাস ১৯ মে’র মধ্যে ৯৭ শতাংশ এবং ৩০ মে মধ্যে ৯৯ শতাংশ বিলীন হয়ে যাবে। তবে বাংলাদেশ থেকে ভাইরাসটি পুরোপুরি বিদায় নিতে পারে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে। আর বিশ্ব থেকে করোনা পুরোপুরি বিদায় নিতে পারে ৯ ডিসেম্বরের মধ্যে। যদিও ২৯ মে’র মধ্যে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ থেকে ৯৭ শতাংশ বিলীন হবে করোনাভাইরাস বলে জানিয়েছে এসইউটিডি।

উল্লেখ্য গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে সর্বপ্রথম এই ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। এরপর একে একে বিশ্বের ১৮০ টির বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ১৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে পাঁচ হাজার ৯১৩ জন। আর সুস্থ হয়েছে ১৩১। করোনায় বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত্যু হয়েছে প্রায় দুই লাখ সাত হাজার মানুষের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৩০ লাখ মানুষ।