কলেজ বন্ধ, শিক্ষক-কর্মচারীদের নিয়ে দরিদ্র কৃষকের ধান কেটে দিচ্ছেন অধ্যক্ষ

১:২১ অপরাহ্ন | মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৮, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, স্টাফ রিপোর্টার, গোপালগঞ্জ: মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ধান কাটা নিয়ে বিপাকে পড়া কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার সরকারি শেখ রাসেল মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ বাড়ৈ।

কলেজ বন্ধ থাকায় কাঁচি নিয়ে শ্রমিক সংকটে পড়া দরিদ্র কৃষকদের ক্ষেতের ধান কাটতে নেমেছেন তিনি। এলাকার দরিদ্রদের ধান যতদিন মাঠে থাকবে ততদিন তিনিও শিক্ষক কর্মচারীদের নিয়ে ধান কাটতে মাঠে থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ বাড়ৈ তার কলেজের শিক্ষক, কর্মচারীদের নিয়ে কলাবাড়ি বিলে গিয়ে দরিদ্র কৃষক সমর হালদারের ১ বিঘা জমির ধান কেটে দেন।

কৃষক সমর হালদার বলেন, কয়েকদিন আগেই আমার জমির পাকা ধান কাটার উপযুক্ত হয়েছে। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে এলাকায় শ্রমিক সংকট দেখা দেওয়ায় ধান কাটতে পারছিলাম না। এ কথা জানার পর অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ বাড়ৈ তার কলেজের শিক্ষক, কর্মচারীদের নিয়ে আমার ১বিঘা জমির ধান কেটে দিয়েছে। এই ধান কেটে দেওয়ায় আমার অনেক উপকার হয়েছে।

জানতে চাইলে অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ বাড়ৈ সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, আমি একজন কৃষকের ছেলে। কৃষকের রক্ত আমার শরীরে বইছে। কাঁচি হাতে নিয়ে ধান কাটার অভ্যাস আমার ছোট বেলা থেকেই আছে। করোনার কারণে বর্তমানে ব্যাপক শ্রমিক সংকট দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় আমি আমার শিক্ষক ও কর্মচারীদের নিয়ে দরিদ্র মানুষদের বিনা পারিশ্রমিকে ধান কেটে দেওয়ার সিন্ধান্ত নিয়েছি। বর্তমানে আমাদের কলেজ বন্ধ রয়েছে। তাই যতদিন মাঠে ধান থাকবে ততদিন দরিদ্র কৃষকদের ধান কেটে দিতে আমরা মাঠে থাকবো।