এতিম শিশুদের জন্য মাশরাফির উপহার

১১:৫২ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৩০, ২০২০ খুলনা
mash

সময়ের কণ্ঠস্বর, খুলনাঃ করোনার প্রাদুর্ভাবে প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। স্কুল-কলেজ কিংবা ভার্সিটি পড়ুয়া সকল শিক্ষার্থীরা এই সময়টা যার যার পিতামাতা ও পরিবারের কাছে আনন্দে দিন কাটাচ্ছে।

কিন্তু বন্ধ হয়নি এতিমখানাগুলো। ছাত্ররা এতিমখানাতেই আছেন হুজুরদের তত্বাবধানে। এখানে থাকলেও নিত্য প্রয়োজনীয় অভাব দেখা দেয় এমন খবর শুনে দ্রুত ব্যবস্থা নেন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজার পক্ষ থেকে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ৩৪টি এতিমখানায় খাদ্যসামগী বিতরণ করা হয়েছে। লোহাগড়া সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় চত্বরে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রতিটি এতিমখানার তত্ত্বাবধায়কদের কাছে ৫০ কেজি করে চালসহ খাদ্যসামগী তুলে দেয়া হয়।

মাশরাফি বিন মর্তুজা এমপি বর্তমানে ঢাকায় আছেন। তবে তার পক্ষ থেকে এসব খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুন্সী আলাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মশিয়ূর রহমান, সহসভাপতি এ কে এম ফয়জুল হক, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক এ এম আব্দুল্লাহ, সাজ্জাদ হোসেন মুন্না, লোহাগড়া পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, লোহাগড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মুন্সী জোসেফ হোসেন প্রমুখ।

উপহার বিতরণকালে লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ জানান, পবিত্র মাহে রমজানে মাননীয় সাংসদ তার ক্রিকেটাঙ্গন থেকে উপার্জিত অর্থ দিয়ে এতিম শিশুদের পাশে দাঁড়ানোয় ওনাকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ। দুর্দিনে এভাবে আমাদের সমাজের সকল স্তরের মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তিনি এক মানবিক নড়াইল বিনির্মাণ করে চলেছেন। মাননীয় সাংসদের সেই মানবিক নড়াইল বিনির্মাণের পথচলায় লোহাগড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সবসময় পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে ইনশাআল্লাহ।

মাশরাফির বন্ধু জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৌমেন বসু জানান, মাশরাফি তার ক্রিকেটাঙ্গনের উপার্জিত টাকায় নড়াইল-২ আসনের অন্তর্গত প্রতিটি এতিমখানায় এ উপহার সামগ্রী দিচ্ছেন। বৃহস্পতিবার লোহাগড়া উপজেলার এতিমখানাগুলোতে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের মধ্য দিয়ে এই কার্যক্রম শুরু হলো। পরবর্তীতে নড়াইল সদর উপজেলার এতিমখানাগুলোতে এ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হবে। এছাড়া এতিমখানার শিশুদের যেন কোন সমস্যা না হয়, সে জন্য মাশরাফি সার্বক্ষণিক খোঁজখবর রাখছেন বলে জানান মাশরাফির বন্ধু সৌমেন বসু।

এর আগে মাশরাফির পক্ষ থেকে ১২০০ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী প্রদান, ডাক্তার, নার্স ও সাংবাদিকদের জন্য পিপিই প্রদান, সদর হাসপাতালের প্রবেশদ্বারে জীবানুনাশক কক্ষ ও ডক্টরস সেফটি চেম্বার স্থাপন, জেলা কারাগারের কয়েদিদের জন্য জীবাণুনাশক উপকরণ বিতরণসহ করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেন তিনি।