ক‌রোনার মধ্যেই শরীয়তপুরে আ.লীগের দুই গ্রু‌পের হামলা-ভাংচুর

৮:২৮ অপরাহ্ন | শুক্রবার, মে ১, ২০২০ ঢাকা
m aram,

স্টাফ রিপোর্টার, শরীয়তপুর: শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নে চরগাজিপুর এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘ‌টে‌ছে। এ সময় প্রায় দশটি বাড়িঘর ভাঙচুর ক‌রে প্র‌তিপ‌ক্ষের লোকজন। হামলায় স্থানীয় এক ইউপি সদস্য সহ দুই গ্রু‌পের সহ ৩০ জন আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ এ‌প্রিল) বিকা‌লে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উদ্ধার ক‌রে প্রথ‌মে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চি‌কিৎসার জন্য আনলে সেখানেও মারামা‌রির সাথে উ‌ত্তেজনা সৃ‌ষ্টি হয়। একপর্যা‌য়ে আবার আহত‌দের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্সে নি‌য়ে ভর্তি ক‌রে স্বজনরা।

হামলার স্বীকার সিজিয়া বেগম বলেন, আমার স্বামী, ভাশুর, দেবররা জীবনভর আওয়ামী লীগ করে আসছে, আজকে যারা কোনোদিন আওয়ামী লীগ করে নাই, তারা এই দলে যোগ দিয়া আমাদের উপর হামলা করেছে, তাদের অত্যাচারে আমরা ক‌রোনা মহামা‌রি‌তেও ঘরে থাকতে পারি না।

ভুক্তভোগী আল ইসলাম মিয়া বলেন, শাহ আলম মাদবর, গনি চোকদার, হিরু মাদবর এরা সবসময়ই বিএনপি করেছে আজ তারা আওয়ামী লীগে যোগ দিয়া আমাদের কোপায়, বাড়িঘর ভাঙচুর করছে, আমরা এর বিচার চাই।

হামলার স্বীকার মো. সোহাগ বলেন, আমি রোজা রেখেছি, মারামারি করার ইচ্ছা ছিল না। হঠাৎ আমাদের বাড়ি ঘরে প্রায় দুইশোরও বেশি লোক অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। আমার বাবা-মা তারাও রোজা রেখেছেন, তাদেরকে গুরুতর জখম করে আহত করেছে। শাহ আলম মাদবর নিজেদের বংশের মধ্যে বিরোধ। ওরা চায় আমরা ওদের দলে থেকে মারামারি করি, কিন্তু আমরা ওদের সাথে নেই, তাই আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে।

চন্দ্রপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য আত্তাজুল মাদবর বলেন, আমি সাবেক এমপির মোজাম্মেলের দল করেছি তাই আমার উপর (বর্তমান এম‌পি) প্রতিপক্ষ লোকজন হামলা করেছে, আমি মামলার কর‌তেও থানায় যে‌তে ভয় পা‌চ্ছি। কিভাবে মামলা কর‌বো, থানায় গে‌লেই‌তো হামলা মামলার শিকার হ‌বো।

পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ও‌সি) মো. আসলাম উদ্দিন বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। প‌রে পু‌লিশ গি‌য়ে তা‌দের নিয়ন্ত্রন ক‌রে। এ ঘটনায় পু‌লিশ দুইজনকে আটক করে‌ছে। এখ‌নো মামলা হয়‌নি।