মধ্যপ্রদেশে মুসলিম ব্যবসায়ীদের নিষিদ্ধ করে পোস্টার

১১:৫৮ পূর্বাহ্ন | সোমবার, মে ৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- গতমাসে উত্তরপ্রদেশের বিজেপির এক বিধায়ক মুসলমান সবজি বিক্রেতাদের বয়কটের ডাক দেন। প্রায় একই পথে হাঁটল মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের একটি গ্রাম। সেখানে মুসলমানদের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করে পোস্টার লাগানো হয়েছে।

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদন বলছে, পুরো ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় প্রশাসন। পুলিশ পোস্টারটি খুলে নিছে। তবে কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে জানতে না পেরে অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে।

একটানা লকডাউনের পর সম্প্রতি সংক্রমিত নয় ভারতের এমন কিছু জায়গায় কেন্দ্রীয় নির্দেশে দোকান খুলতে শুরু করেছে। ঠেলাগাড়িতে সবজি নিয়ে বাড়ি বাড়ি বিক্রি করতেও বেরোচ্ছেন অনেকে। সেই পরিস্থিতিতেই শনিবার ইন্দোরের পেমলপুর গ্রামে ঢোকার মুখে হিন্দিতে লেখা পোস্টার চোখে পড়ে কয়েক জন বিক্রেতার। তাতে লেখা ছিল, ‘মুসলমান ব্যবসায়ীদের গ্রামে প্রবেশ নিষিদ্ধ।’

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের সূত্রে বিষয়টি সামনে আসার পর রবিবার সকালে গ্রামে পুলিশের একটি দল যায়। ইন্দোরের ডিআইজি হরিনারায়ণচারী মিশ্র বলেন, “খবর পাওয়ার পরই ঘটনাস্থলে পৌঁছে পোস্টারটি সরিয়ে ফেলা হয়। অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।”

এই ঘটনায় শিবরাজ সিং চৌহানের সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছেন কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং। টুইটারে লেখেন, ‘‘এটা কি প্রধানমন্ত্রীর আবেদনের পরিপন্থী নয়? এই ঘটনা কি আইনত অপরাধ নয়? মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এবং মধ্যপ্রদেশ পুলিশের কাছে জবাব চাইছি। সমাজে এই ধরনের বিভাজন দেশের পক্ষে মোটেই শুভ নয়।’’

মাস খানেক আগে উত্তরপ্রদেশে একটি বেসরকারি ক্যানসার হাসপাতালের সামনেও একই ধরনের পোস্টার পড়েছিল। কভিড-১৯ পরীক্ষা ছাড়া কোনো মুসলিম রোগীকে হাসপাতালে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে লেখা হয়েছিল তাতে।

এ ছাড়া মুসলমানদের থেকে শাক-সবজি না কেনার পরামর্শ দিয়ে এপ্রিলের মাঝামাঝিতে শোকজের মুখে পড়েন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক সুরেশ তিওয়ারি।