শেষ রক্ষা হলো না অটোরিকশা চালক লিটনের, অনিশ্চতায় সংসার

১১:১৬ অপরাহ্ন | সোমবার, মে ৪, ২০২০ ঢাকা
tan

অন্তু দাস হৃদয়, স্টাফ রিপোটার: পিঠের উপর টিউমার হয়ে মরণব্যাধি ক্যানসারে রূপ নেওয়ার প্রাথমিক অবস্থা থেকে কেমোথেরাপিতে সেরে উঠেও শেষ রক্ষা হলো না সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক লিটন মিয়া (২৬) নামে এক যুবকের। সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন তিনি।

গত রবিবার (৩ মে) দিনগত রাতে ট্রাকের ধাক্কায় আহত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ (মমেক) হাসাপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

নিহত লিটন টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার কুড়াগাছা ইউনিয়নের চাপাইদ শিমলাপাড়া গ্রামের মৃত সিদ্দিক মিয়ার ছেলে। টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ রোডের মধুপুর বনাঞ্চলের থানার বাইদ বিমান বাহিনীর ফায়ার রেঞ্জ এলাকায় বিকেলে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন।

এ ব্যাপারে নিহত লিটনের মামা আমান আলী সময়ের কন্ঠস্বর’কে জানান, শনিবার বেলা আড়াইটার দিকে গত দুই মাসে কেনা অটোরিকশায় যাত্রী নিয়ে লিটন ময়মনসিংহ যাচ্ছিলেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের ধাক্কায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে দুই যাত্রীসহ লিটন গুরুতর আহত হন।

পরে খবর পেয়ে মধুপুর ফায়ার স্টেশনের স্টেশন কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একদল ফায়ার সার্ভিস কর্মী ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক লিটনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নেওয়ার পর অবস্থা আরও খারাপ হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। রাতে ঢাকায় নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

পরিবার সূত্র জানায়, ২০১৭ সালে লিটনের পিঠে টিউমার থেকে ক্যানসার ধরা পড়ে। পিতৃহীন অসহায় লিটনের চিকিৎসার সামর্থ না থাকায় মধুপুরের মিশনারি হাসপাতাল তার ঢাকায় চিকিৎসার ব্যবস্থা করে। দীর্ঘ ৬ মাস চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে কাজে যোগ দেন। তার রোজগারে মা এবং বোনকে নিয়ে ভালোই চলছিল সংসার। হঠাৎ এমন দুর্ঘটনায় মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সংসারের সব আশা অনিশ্চতায় পড়ে গেলো।