‘উহানের গবেষণাগার থেকে করোনা ছড়িয়ে পড়ার প্রমাণ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নেই’- চীন

১১:২০ অপরাহ্ন | বুধবার, মে ৬, ২০২০ আন্তর্জাতিক
china-as

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ চীনের উহান শহর থেকে গত বছরের ডিসেম্বরে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে করোনাভাইরাস। বিশ্ব জুড়ে মহামারির আকার নেওয়া এই ভাইরাসে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৭ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে দুই লাখ ৬১ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে উহান শহরের একটি ভাইরোলোজি গবেষণাগার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে ধারাবাহিকভাবে অভিযোগ করে আসছেন মার্কিন নেতারা। চীনসহ আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের বেশিরভাগই তা অস্বীকার করে আসছেন। গত রবিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, উহানের ভাইরাস গবেষণাগার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার তাৎপর্যপূর্ণ প্রমাণ রয়েছে তাদের কাছে।

এর জবাবে বুধবার বেইজিংয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিয়াং বলেন, ‘আমার বিশ্বাস এই বিষয়টি বিজ্ঞানী ও চিকিৎসা পেশাজীবীদের ওপর ছেড়ে দেওয়া উচিত। কারণ রাজনীতিবিদেরা নিজেদের অভ্যন্তরীণ স্বার্থে মিথ্যা বলে থাকে।’

তিনি বলেন, ‘মাইক পম্পেও বারবার একই কথা বলে যাচ্ছেন কিন্তু কোনও প্রমাণ দেখাতে পারছেন না। কিভাবে পারবেন? তার কাছে তো কোনও প্রমাণই নেই।’

এছাড়া চীনের করোনাভাইরাস মহামারি ব্যবস্থাপনা নিয়ে ক্রমাগত সমালোচনা করে চলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেন চীনের ভাইরোলোজি গবেষণাগার থেকে করোনাভাইরাসের সৃষ্টি হয়েছে বলে তিনি প্রমাণ দেখতে পেয়েছেন। উল্লেখ্য করোনার মহামারিতে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে।

বেইজিংয়ের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্র নিজে ভাইরাস মোকাবিলার ব্যর্থতা ঢাকতে চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে মানুষের মনোযোগ ঘোরাতে চাইছে। বৃহস্পতিবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিয়িং বলেন, ‘আমরা যুক্তরাষ্ট্রকে থামার আহ্বান জানাচ্ছি…। তাদের উচিত প্রথমে নিজেদের অভ্যন্তরীণ বিষয় দেখভাল করা। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো যুক্তরাষ্ট্রে এই মহামারি নিয়ন্ত্রণ ও মানুষের জীবন রক্ষা করা নিয়ে চিন্তা করা।’

এর আগে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এর বক্তব্যকে অনুমান নির্ভর আখ্যা দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। চীনের গবেষণাগারে ভাইরাসটির উৎপত্তি হওয়ার কোনও প্রমাণ থাকলে তা সরবরাহের আহ্বান জানিয়েছেন ডব্লিউএইচও’র শীর্ষ জরুরি পরিস্থিতি বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ডা. মাইক রায়ান।