সংবাদ শিরোনাম

প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার; পরিবারের দাবি পরিকল্পিতভাবে হত্যাস্বামী ঘুমে, স্ত্রী ঝুলে আছে ফাঁসির রশিতেহেফাজতের প্রতি দুর্বলতা দেখানোর সুযোগ নেই: নানকমাদারীপুর সদর হাসপাতালে টিকার জন্যে দীর্ঘ লাইন, স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেইঅ্যাডিশনাল এসপি শামিম আমার গায়ে হাত তুলেছে: কাদের মির্জাকোভিড ভ্যাকসিনকে বিশ্বজনীন পণ্য হিসেবে ঘোষণা করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী‘হেফাজতের তাণ্ডবে বিএনপি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত’মামুনুল হককে রিমান্ডে নিতে চায় সিআইডিওযুবকের গলায় অস্ত্রোপচারের চেষ্টা শিশু বিশেষজ্ঞের, অতঃপর…ভালুকায় এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ব্যবসায়ীকে হত্যা

  • আজ মঙ্গলবার। গ্রীষ্মকাল, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। বিকাল ৪:২৫মিঃ

ঝালকাঠিতে করোনা জয় করলেন পুলিশ-ইউপি সদস্যসহ ৫ জন

৩:৩২ অপরাহ্ন | শুক্রবার, মে ৮, ২০২০ দেশের খবর, বরিশাল

মো:নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি প্রতিনিধি: ঝালকাঠিতে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়া এক পরিবারের তিনজনসহ একজন পুলিশ ও ইউপি সদস্য করোনা মুক্ত হয়েছেন।

বরিশালের পর আইইডিসিআরে পরীক্ষায় তাদের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে জানান ঝালকাঠি সিভিল সর্জন ডাক্তার শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার।

ঝালকাঠি জেলা সিভিল সার্জন আরও জানান, এই ৫ জনের মধ্যে প্রথমবার শনাক্ত হওয়ার পর এক পুলিশ সদস্য বরিশাল করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি নারায়ণগঞ্জে পুলিশের এসআই পদে কর্মরত থেকে অসুস্থতায় ঝালকাঠির শহরতলীর গ্রামের বাড়িতে এসে নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হন।

এদিকে সদর উপজেলার ধানসিঁড়ি ইউনিয়নে নারায়ণগঞ্জ থেকে আসা একই পরিবারের শিশুসহ তিন সদস্যেরে শরীরে দ্বিতীয়বারের পরীক্ষায়ও করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে। তার বাড়িতে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

অপরদিকে ওই ইউনিয়নের করোনা শনাক্ত হওয়া ইউপি সদস্যও করোনা মুক্ত বলে আইডিসিআরের পরীক্ষায় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে এদের সবাইকে আপাতত বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে বলে জানিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার।

প্রসঙ্গত, ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হালদারের নির্দেশনায় তিন উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মেডিকেল অফিসারদের তত্ত্বাবধানে তাদের চিকিৎসা শুরু হয়। অসুস্থ্য থাকাকালীন থেকে এরা সবাই জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরও সহযোগিতা পেয়ে আসছে।

ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হালদার বলেন, করোনার হাত থেকে বাঁচতে হলে সবাইকে এই মুহুর্তে ঘরে থাকতে অভ্যস্থ হতে হবে। আর জরুরী প্রয়োজনে বের হলে মাস্ক ও হ্যান্ড গ্লাভসসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে।