সংবাদ শিরোনাম

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ স্বাধীনতার প্রকৃত ঘোষণা: প্রধানমন্ত্রীনির্মাণকাজ শেষের আগেই ‘মডেল মসজিদের’ বিভিন্ন স্থানে ফাটলআহসানউল্লাহ মাস্টারসহ ১০ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান পাচ্ছেন স্বাধীনতা পুরস্কারঐতিহাসিক ৭ মার্চের সুবর্ণ জয়ন্তী: টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মানুষের ঢলচট্টগ্রাম কারাগারে হাজতি নিখোঁজ, জেলার-ডেপুটি জেলার প্রত্যাহারদেবীগঞ্জে ট্রাক্টরের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যুকরোনার এক বছর: মৃত্যু ৮৪৬২, শনাক্ত সাড়ে ৫ লাখটাঙ্গাইলে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উদযাপনমোবাইল ইন্টারনেট গতিতে উগান্ডারও পেছনে বাংলাদেশমশাল মিছিল থেকে গ্রেফতার ৬ ছাত্রনেতার জামিন

  • আজ ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

এবার কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলেন সরকারি চাকরি প্রত্যাশীরা

৫:৫৮ অপরাহ্ন | শুক্রবার, মে ৮, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ প্যানেলের চাকরি প্রত্যাশী প্রার্থীরা এবার কৃষকের ধান কেটে তাদের ঘরে তুলে দিয়েছেন।

শুক্রবার (০৮ মে) সকালে উপজেলার মতাদী ইউনিয়নের কৃষক আবুল কালাম আজাদের দুই বিঘা জমির ধান কাটার মাধ্যমে এই কর্মসূচি শুরু করেন চাকুরি প্রত্যাশীরা।

জানাগেছে, করোনা ভাইরাসের কারণে ধান কাটার কৃষক শ্রমিকরা বাহিরে বের হচ্ছেন না। আর অনেকেই ভালো উপার্জনের আশায় ধান কাটা শ্রমিক হিসেবে দেশের বিভিন্নস্থানে যাচ্ছেন। ফলে এ অঞ্চলের কৃষকের জমিতে পাকা ধান পড়ে রয়েছেন। এসব কৃষকের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশী প্রার্থীরা।

প্যানেল বাস্তবায়ন কমিটির জেলা সভাপতি শাহিন আলম বলেন, জেলার বেশিরভাগ কৃষকরা শ্রমিক সংকটের কারণে ধান কাটতে পারছে না। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে আমরা কৃষকের ধান কেটে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রথমধাপে কৃষক আবুল কালাম আজাদের জমির দুই বিঘা জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দেওয়া হলো। আমরা পর্যায়ক্রমে জেলার প্রতিটি গ্রামে হত-দরিদ্র চাষিদের ধান কেটে দিয়ে ঘরে তুলে দিবো।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের একটাই দাবি পূর্বের নিয়োগের মতো ২০১৮ সালের নিয়োগেও প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগ দিয়ে আমাদের বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি দিন। ২০১৮ সালে ২৪ লাখ চাকরি প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে আমরা ৫৫ হাজার ২৯৫ লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি। যা মোট পরীক্ষার্থীর ২ দশমিক ৩ শতাংশ। ফলে আমাদের যোগ্যতা নিয়ে কোনো সংশয় নেই।

কৃষক আবুল কালাম আজাদ জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে ধান কাটা শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছিল না। তারা এসে আমার দুই বিঘা জমির ধান কেটে দিয়েছে। তাদের আল্লাহ ভালো করবে। তাছাড়াও প্রধানমন্ত্রী কাছে অনুরোধ করছি, তাদের বেকার না রেখে চাকুরির ব্যবস্থা করে দেন।