সংবাদ শিরোনাম

দেশে আবারও লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, মৃত্যু ১৩ফের করোনার সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা, প্রধানমন্ত্রীর তিন নির্দেশনাবাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরও মজবুত হবে: : নরেন্দ্র মোদিসীমানা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বাধা হওয়া উচিত নয়: প্রধানমন্ত্রীগাজীপুরে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক আটককালকিনিতে পরকীয়া প্রেমিক-প্রেমিকা আপত্তিকর অবস্থায়  আটকজিয়াউর রহমানকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য আপত্তিকর: রিজভীনিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বরযাত্রীবাহী বাস ধানক্ষেতে, আহত ১৫রংপুরে ধর্ষণ মামলায় এএসআইসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিটসিরাজগঞ্জে পুত্রবধু ধর্ষণের অভিযোগে শ্বশুর গ্রেফতার

  • আজ ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গোপালগঞ্জে হামলা চালিয়ে আসামি ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ৫

১:২৫ অপরাহ্ন | রবিবার, মে ১০, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

এইচ এম মেহেদী হাসানাত, স্টাফ রিপোর্টার, গোপালগঞ্জ- গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের মামলায় পুলিশের কাছ থেকে ৩ আসামিকে ছিনতাই ও ৭ পুলিশকে আহত করার ঘটনায় মুকসুদপুর থানায় মামলা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০৯ মে) রাতে মুকসুদপুর থানা পুলিশের সাব ইনেসপেক্টর হায়াতুর রহমান বাদি হয়ে খান্দারপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাব্বির খানকে প্রধান আসামি করে ৩৮ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ ৫ জনকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাটের মামলায় উপজেলার ভাটরা মোড়ে পুলিশের কাছ থেকে ৩ আসামিকে ছিনিয়ে নেয় স্থানীয় এলাকাবাসী। এ সময় মুকসুদপুর থানার ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন।

মুকসুদপুর থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে গোপালগঞ্জ জেলা শহর থেকে পুলিশের একটি বড় বহর মুকসুদপুরের খান্দারপাড়ায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ৫ জনকে আটক করা গেলেও হাতকড়াসহ ছিনিয়ে নেয়া আসামিদেরকে পুনরায় গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

আসামি ছিনাতাইয়ের ঘটনার পর থেকে সেখানে পুলিশি অভিযান অব্যহত রয়েছে। রাত থেকেই বেজড়া-ভাটরা গ্রামে পুরুষ শুণ্য হয়ে পড়েছে। এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

উল্লেখ্য, মুকসুদপুর উপজেলার বহুগ্রাম ইউনিয়নের কাওইনিয়া গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জাফর মিয়া গ্রুপ ও মনোয়ার মেম্বার গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এরই অংশ হিসাবে গত বুধবার জাফর মিয়া গ্রুপের লোকজনের বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটায় মনোয়ার মেম্বার গ্রুপের লোকজন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামি ধরতে গিয়েছিল একদল পুলিশ।