ভারতে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড

ind

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এবং এর তাণ্ডবে মৃত্যু বেড়েই চলেছে। এ নিয়ে বাড়ছে উদ্বেগ। সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, রবিবার ৪ হাজার ৪শ’ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন কোভিড-১৯ এ। যা দেশটিতে একদিনে আক্রান্তের সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট সংক্রমণ ছাড়াল ৬৭ হাজার।

ওয়ার্ল্ডওমিটারে দেয়া তথ্যানুযায়ী, সব রাজ্যের তথ্য মিলিয়ে ভারতে করোনায় এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছে ৬৭ হাজার ১৬১ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছে ১১১ জন করোনা রোগী। এ পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২ হাজার ২১২ জন। সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ৯৬৯ জন। হাসপাতালে ও হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন ৪৩ হাজার ৯৮০ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১০ লাখ ৯ হাজাত ৩৭টি নমুনা পরীক্ষায় এসব তথ্য মিলেছে।

৩০ জানুয়ারি প্রথম সংক্রমণ শনাক্তের পর প্রথম দু’মাসে ভারতে করোনায় আক্রান্ত ছিল দেড়শ’রও কম। কিন্তু পরের দেড় মাসেই দ্রুত ছড়ায় ভাইরাসটি। মাত্র ৪১ দিনের ব্যবধানে দেশটিতে সংক্রমণ বেড়েছে প্রায় ৩৪ গুণ। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা মহারাষ্ট্রে। সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি মুম্বাই আর পুনেতে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণল্যের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম ওয়ান ইন্ডিয়া জানিয়েছে, রোববার পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২০ হাজার ২২৮ জন। রাজ্যটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছে ১ হাজার ১৬৫ জন। গুজরাটে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৭ হাজার ৭৯৬ জন। মারা গেছে ৪৭২ জন। রাজধানী দিল্লিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ৫৪২ জন। সেখানে প্রাণহানির সংখ্যা ৭৩ জন। আক্রান্তের সংখ্যায় দিল্লির খুব কাছাকাছি তামিলনাড়ুর অবস্থান। সেখানে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৬ হাজার ৫৩৫ জন। মারা গেছে ৪৪ জন।

এছাড়া রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ৩ হাজার ৭০৮ জন ও ৩ হাজার ৬১৪ জন। এ দুই রাজ্যে মারা গেছে যথাক্রমে ১০৬ জন ও ২১৫ জন।

এদিকে ভারতে লকডাউনের মেয়াদ ৪৫ দিন পেরিয়ে যাওয়ার পরও আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। যে কারণে লকডাউনের কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। এর মধ্যেই আরও এক ধাপ লকডাউন শিথিল করতে যাচ্ছে ভারত সরকার। এ লক্ষ্য আজ বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে বৈঠক করবেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী।

◷ ১০:০৫ পূর্বাহ্ন ৷ সোমবার, মে ১১, ২০২০ আন্তর্জাতিক