• আজ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে সিরিয়াল ধর্ষক নিহত, এলাকায় আনন্দ মিছিল

১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ | শুক্রবার, মে ২২, ২০২০ ঢাকা
Gazipur

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, সময়ের কণ্ঠস্বর: করোনার কারণে জেলার অধিকাংশ মানুষই যখন ঘরেবন্দি ‍ঠিক সেই সময় গভীর রাতে ঢাকার অদূরে গাজীপুরের টঙ্গীর রাস্তায় মানুষের আনন্দ মিছিল!  আর এই আনন্দ মিছিলের পেছনের কারণটি হলো র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে এক সিরিয়াল ধর্ষক। র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত আবু সুফিয়ান চাঞ্চল্যকর শিশু চাঁদনী (৭) হত্যা ও ধর্ষণের প্রধান আসামি।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে টঙ্গীর মধুমিতা রেললাইন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে তিন রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব-১ এর গাজীপুর কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, গত ১৬ মে গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন মধুমিতা রেল গেইট এলাকার একটি ময়লার স্তুপ থেকে গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন বেলতলা এলাকার ভাড়াটিয়া মোঃ মামুন মিয়ার মেয়ে মাদ্রাসার ছাত্রী চাদনী(০৭) এর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই শিশুকে ধর্ষণের পর গলা টিপে এবং দুই পায়ে আঘাত করে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় বলে তদন্তে ও ময়নাতদন্তে উঠে আসে। চাঞ্চল্যকর ওই ঘটনায় পরেরদিন গত ১৭ মে  (রোববার)নিলয় (১৫) নামের এক তরুণকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।

গ্রেফতার নিলয় আদালতে সে ও আবু সুফিয়ানসহ ওই শিশুকে ধর্ষণ করে মর্মে জবানবন্দি দেয়। তদন্তে জানা যায়, শুধু এই শিশু নয়, আরও ৪/৫টি ধর্ষণের ঘটনার সাথে জড়িত এই আবু সুফিয়ান।

লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, গ্রেফতার নিলয়ের দেয়া তথ্যে র‌্যাব-১ অভিযানে নামে। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় সুফিয়ান টঙ্গী মধুমিতা রেললাইন এলাকায় বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিচ্ছে।

এরইধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে র‌্যাব-১ অভিযানে যায়। চতুর সুফিয়ান র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি বর্ষণ করে। র‌্যাবও আত্মরক্ষার্থে গুলি ছোড়ে। বন্ধুরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয় সিরিয়াল ধর্ষক আবু সুফিয়ানের মরদেহ। একই ঘটনায় এএসআই আতোয়ার ও কনস্টেবল সেলিম নামে দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়।

বন্দুকযুদ্ধে সুফিয়ানের মৃত্যুর খবর আশে পাশে ছড়িয়ে পড়লে রাতের অন্ধকারেই সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমে আসে এবং আনন্দ প্রকাশ করেন।