সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মৃত্যুপুরী যুক্তরাষ্ট্রে ৯৬ হাজার মানুষের প্রাণহানি

১২:০৯ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, মে ২২, ২০২০ আন্তর্জাতিক
usaa

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে। এখন পর্যন্ত বিশ্বের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর দেশটিতে প্রাণহানি ৯৬ হাজার ৩৫৪ জনে ঠেকেছে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৬ লাখ ২১ হাজার ছুঁই ছুই।

দেশটিতে আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার অনেক কম। তারপরও সেখানে বেঁচে ফিরেছেন ৩ লাখ ৮২ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন ১৭ হাজার ৯০২ জন।

করোনার সবচেয়ে ক্ষতির মুখে পড়েছে নিউইয়র্কে। যেখানে প্রাণহানি ২৮ হাজার ৮৮৫ জন। আক্রান্ত ৩ লাখ ৬৬ হাজারের বেশি। এরপরেই রয়েছে নিউ জার্সি। যেখানে ভাইরাসটি হানা দিয়েছে ১ লাখ ৫৩ হাজারেরও বেশি মানুষের দেহে। যাতে প্রাণ গেছে ১০ হাজার ৮৫২ জনের।

লাখ ছাড়িয়েছে ইলিনয়সে আক্রান্তের সংখ্যা। এর মধ্যে না ফেরার দেশে সাড়ে ৪ হাজারের বেশি মানুষ। একই অবস্থা ম্যাসাসুয়েটস অঙ্গরাজ্যের। যেখানে আক্রান্ত ৯০ হাজারের বেশি। এর মধ্যে প্রাণ গেছে ৬ হাজার ১৪৮ জনের।

তবে দেশটিতে অন্তত ৩৬ হাজার মানুষ কম মারা যেত যদি করোনা নিয়ন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্র যখন লকডাউন শুরু করেছে, তার মাত্র এক সপ্তাহ আগে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করতো।

সম্প্রতি কলম্বিয়া ইউনিভার্সিটির গবেষকরা দেশটিতে গত ১৫ মার্চ থেকে ৩ মে পর্যন্ত ভাইরাস সংক্রমণের হার ও বিস্তার নিয়ে একটি মহামারি সংক্রান্ত মডেল দাঁড় করিয়েছেন। সেখানেই এ তথ্য উঠে এসেছে।

এ গবেষণায় নেতৃত্বদানকারী মহামারি বিশেষজ্ঞ জেফারি শামান বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র যদি মাত্র দুই সপ্তাহ আগে লকডাউন জারি করত, তবে সেখানে অন্তত ৮৪ শতাংশ মানুষ কম মারা যেত এবং ৮২ শতাংশ সংক্রমণ কম ঘটত। এর মধ্যে শুধু নিউইয়র্কেই ১৭ হাজার ৫০০ মানুষের প্রাণরক্ষা হতো।’

উল্লেখ্য গত ডিসেম্বরে চীনে করোনা সংক্রমণের পর ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যে ৩ লাখ ৩২ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৫১ লাখের বেশি। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন প্রায় সাড়ে ১৯ লাখ মানুষ।