ঈদের দিন সকালে সীমান্তের কাছে মিললো ব্রাক কর্মকর্তার লাশ

১:০৮ অপরাহ্ণ | সোমবার, মে ২৫, ২০২০ খুলনা, দেশের খবর
লাশ উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি, সময়ের কণ্ঠস্বর- চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা মুন্সীপুর সীমান্ত এলাকা থেকে ব্রাক কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের (৪০) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার গলায় দাগ ও কানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আজ ঈদের দিন সোমবার (২৫ মে) সকালে বাংলাদেশ সীমান্তের ২শ’ গজ অভ্যন্তরে মুন্সীপুর এলাকার একটি মেহগুনি বাগান থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় পুরো এলাকজুড়ে চলছে উত্তেজনা। সাইফুলের হত্যাকান্ড নিয়ে ডানা চলছে নানা গুঞ্জন। গতকাল স্থানীয় একজনের সাথে রাজনৈতিক মতবিরোধ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় তার। সেখানে তাকে মারধরও করা হয়।  নিহত সাইফুলের পরিবারের দাবী এই ঘটনার জের ধরেই হত্যা করা হয়েছে সাইফুলকে।

ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে মরদেহ। পুলিশের প্রাথমিক ধারণা, শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে তাকে। এ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

নিহত সাইফুল ইসলাম দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুরকুল্লা গ্রামের নতুনপাড়ার আবদার আলির ছেলে। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ব্রাকে কর্মরত ছিলেন।

প্রাথমিক তদন্তের বরাত দিয়ে দামুড়হুদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, রোববার সকালে সাইফুল ইসলাম মাংস কেনার জন্য পীরপুরকুল্লা বাজারে যান। এসময় একই গ্রামের নাজমুল হাসান রতন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে তার বিএনপি করা নিয়ে কথাকাটি হয়। এসময় রতন তাকে বিএনপি করিস এমন কথাও জিজ্ঞাসা করে। উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সাইফুলকে মারধর করে রতন। ঘটনাস্থল থেকে সাইফুল বাড়ি ফিরে আসেন।

সাইফুলকে তার বন্ধুরা দুপুরে বাজারে আসার জন্য ডাকে। তারপর সন্ধ্যায় সাইফুলের স্ত্রী তাকে মোবাইল ফোনে কল দিলে সে আর রিসিভ করেননি। পরিবারের লোকজন রাতে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তাকে পাননি।

সোমবার সকালে স্থানীয়রা পুলিশকে জানান দামুড়হুদা মুন্সীপুর সীমান্তের বাংলাদেশ অভ্যন্তরে মেহগুনি বাগানে সাইফুল ইসলামের মরদেহ পড়ে আছে।