উহানের মার্কেট থেকে করোনা ছড়ায়নি, দাবি চীনের

৫:২৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, মে ৩১, ২০২০ আন্তর্জাতিক
wh

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস কোন জায়গা থেকে প্রথম ছড়িয়েছে, সেটি জানতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার মিত্ররা যখন একাট্টা, তখন চীনের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাদের মুখে উল্টো সুর। এতদিন উহানের একটি মাংসের বাজারের কথা বলা হলেও এখন সেটা নিয়েও দ্বিধায় তারা।

সম্প্রতি চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেশটির সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের প্রধান গাও ফু বলেছেন, ‘করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হিসেবে আমরা শুরুতে উহানের বাজারকে মেনে নিয়েছিলাম। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে বাজারটিও ভাইরাসের সাধারণ শিকার’।

ওই বাজারটি গত ডিসেম্বরে চীন সরকার পরিষ্কারের পর বন্ধ করে দেয়। গাও এর আগে তার বক্তব্যে একাধিকবার মহামারি সৃষ্টির পেছনে এই বাজারকে দায়ী করেছেন। এর আগে গাও ফু জানান, নতুন ভাইরাসটি প্রাণী থেকে ছড়াতে পারে।

এখন তিনি বলছেন, প্রাণীর নমুনায় এই ভাইরাস পাওয়া যায়নি! তার দাবি, শুধুমাত্র ড্রেনের ময়লার মতো প্রাকৃতিক নমুনায় পাওয়া গেছে। এর আগে ল্যানসেটের একটি গবেষণা প্রতিবেদনে জানানো হয়, চীনের প্রথম ৪১ জন করোনা রোগীর অর্ধেকের বেশি সংক্রমিত হয়েছেন ওই বাজার থেকে।

আমেরিকা-ভিত্তিক আরেকটি গবেষণার বরাত দিয়ে দুই সপ্তাহ আগে দ্য মেইল অন সানডে জানায়, ওই বাজারটিতে কোনো আক্রান্ত ব্যক্তি প্রবেশের পর ভাইরাসটি ছড়িয়ে থাকতে পারে। নতুন ভাইরাসের প্রতিষেধক কিংবা টিকা তৈরির জন্য এর উৎপত্তিস্থল সম্পর্কে জানাটা জরুরি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক কর্মকর্তা কিছুদিন আগে বলেন, কোভিড-১৯ বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আবার বলছেন, ভাইরাসটি ওই বাজারের পাশে একটি ল্যাব থেকে ছড়িয়ে থাকতে পারে। এটি মানবসৃষ্ট কিনা, তা নিয়ে তদন্তেরও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। আমেরিকার সঙ্গে সুর মিলিয়ে অনেক দেশ চীনের কাছে ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল সম্পর্কে নিশ্চয়তা চাইছে।

উল্লেখ্য বিশ্বে এখন পর্যন্ত ৬১ লাখ ৭২ হাজার ৪৪৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ লাখ ৭১ হাজার ১৮৬ জন মারা গেছেন অন্যদিকে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ২৭ লাখ ৪৪ হাজার ৪৪ জন। বর্তমানে চিকিৎসাধীন ৩০ লাখ ৫৭ হাজার ২১৮ জনের মধ্যে ৫৩ হাজার ৪৫৯ জনের অবস্থা গুরুতর।