সংবাদ শিরোনাম
গত ২৪ ঘন্টায় যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও বেশি মৃত্যু ভারতে | বাংলাদেশিসহ বিশ্বের ১১ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীকে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগের নির্দেশ | একদিনে রেকর্ড সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লাখ ছাড়াল | করোনা কেড়ে নিল আরও ৫৫ প্রাণ, নতুন শনাক্ত ৩০২৭ | সিলেটে হত্যাচেষ্টা মামলায় হাসপাতালের অফিস সহকারী নূর মোহাম্মদ জেলে | বাংলাদেশে ডাল চাষের সমস্যা ও সম্ভাবনা | কোটালীপাড়ায় পৈত্রিক ভিটায় ‘প্রার্থনা কুঞ্জ’ করতে চেয়েছিলেন এন্ডু কিশোর | নোয়াখালীতে ছয় মাসে ‘৫৪ ধর্ষণ’! | মিয়ানমারের ২ শীর্ষ কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা | প্রধান কার্যালয়সহ রিজেন্টের দুই হাসপাতাল সিলগালা |
  • আজ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে একদিনে ২৪ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত ১

১১:২২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ২, ২০২০ রংপুর
test

শাহ্ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে গেল ২৪ ঘন্টায় এক মৃত নারীসহ নতুন করে করোনায় আরো ২৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন। দিনাজপুরে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৫৫ জন। এর মধ্যে ৫৫ জন সুস্থ হয়েছেন। দু’জন শনাক্ত হওয়ার আগেই মারা গেছেন।

দিনাজপুর জেলা সিভিল সার্জেন ডা. আব্দুল কুদ্দুস জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুর জেলার ১৬৬ জনের নমুনায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ পিসিআর মেশিনের পরীক্ষায় ২৬ জনের পজেটিভ রিপোর্ট আসে। এর মধ্যে দু’টি ফলোআপ এবং বাকি ২৪টি নতুন আক্রান্ত শনাক্ত। এর মধ্যে একজন মৃত নারীও রয়েছেন। যার করোনা শনাক্তের আগেই মৃত্যু হয়।

মৃত নারী চিরিরবন্দর উপজেলার মোছাঃ আকতারিনা বেগম। ঢাকা থেকে থেকে ফেরত গার্মেন্টস কর্মী মোছাঃ আকতারিনার ৩০ মে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. আজমল হক জানান, আকতারিনা বেশকিছুদিন যাবৎ জ্বর সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। মারা যাওয়ার পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। নমুনা পজেটিভ আসে। পজেটিভ রিপোর্ট আসার পর তার বাড়ির লোকজন সহ আশপাশের বাড়িগুলো লকডাউন করা হয়েছে। মারা যাওয়ার পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার দাফন কার্য সম্পূর্ণ করা হয়েছিল।

অন্যদিকে নতুন করে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে দিনাজপুর সদরে ১৫ জন, বিরামপুরে ৬ জন ও খানসামায় দু’জন রয়েছেন।

দিনাজপুরে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৫৫ জন। এর মধ্যে ৫৫ জন সুস্থ হয়েছেন। দু’জন শনাক্ত হওয়ার আগেই মারা গেছেন। বর্তমানের হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ১৬০ জন। প্রতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ২৮ জন। হাসপাতালে ভর্তি ১০ জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ২ হাজার দু’শ ৮৮ জন।