সংবাদ শিরোনাম
‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বর্তমানে এক অনন্য উচ্চতায়’- এলজিআরডি মন্ত্রী | আজ পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সা.) | সরকারি এ্যাম্বুলেন্স চালকের হাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা লাঞ্ছিত! | চট্টগ্রামে সাংবাদিক গোলাম সরওয়ার নিখোঁজ, থানায় জিডি | দেশের তথ্য দেশে রাখতে আইন করার কথা ভাবছে সরকার: প্রতিমন্ত্রী পলক | জবিতে হাজী সেলিমের দখলে থাকা তিব্বত হল সহ সকল হল উদ্ধারের দাবি | ১৫ লাখ টাকা যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন, থানায় অভিযোগ! | মহানবী (সাঃ) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে শেরপুরে মানববন্ধন | কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে যুবককে হত্যার পরে লাশ পুড়িয়ে দিলো জনতা! | বিশ্ব মুসলিম নেতাদের ইমরান খানের চিঠি |
  • আজ ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বজ্রপাতে পাবনায় ৪ জনের মৃত্যু

১১:৫০ অপরাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জুন ৪, ২০২০ অকালমৃত্যু প্রতিদিন
bojra

পাবনা প্রতিনিধিঃ পাবনায় বিভিন্ন উপজেলায় আলাদা বজ্রপাতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে সাত বছরের এক শিশু। এর মধ্যে পাবনা সদর, চাটমোহর, আটঘরিয়া ও সুজানগর উপজেলায় একজন করে মারা যায়। বৃহস্পতিবার (০৪ জুন) বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এসব বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল ইউনিয়নের কর্নিপাড়া গ্রামের কৃষি শ্রমিক শফিকুল ইসলাম (২৫), সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামের কৃষক জলিল সরদার (৫০) ও পাবনা সদর উপজেলার আতাইকুলা ইউনিয়নের তেলিগ্রামের কলেজ ছাত্র নুরুজ্জামান মোল্লা (১৯)। নুরুজ্জামান স্থানীয় শাঁখারীপাড়া সুধীর কুমার উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির অপেক্ষায় ছিলেন।

চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল ইউনিয়ন পরিষতের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, কৃষি শ্রমিক শরিফুল ইসলাম বিকেল চারটার দিকে মাঠে ধান কাটছিলেন। এ সময় মৃদু বৃষ্টিপাতের মধ্যে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।

সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাজাহান বলেন, বিকেল পাঁচটার দিকে মাঠে কাজ করছিলেন কৃষক জলিল সরদার। বৃষ্টির মধ্যে বজ্রপাত হলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

সদর উপজেলার আতাইকুলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিয়ার হোসেন জানান, বিকেলে বাড়ির পাশে গরুর জন্য ঘাস কাটছিলেন কলেজছাত্র নুরুজ্জামান মোল্লা। হঠাৎ করে বজ্রপাত হলে মৃত্যু হয় তাঁর।

অপরদিকে, আটঘরিয়া উপজেলার চাঁদভা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম জানান, বিকেলে চকপাড়া গ্রামে বাড়ির পাশের মাঠে ঘুড়ি উড়াতে যান আবুল হাসেম (৩৭) ও তাঁর শিশু পুত্র হৃদয় (৭)। মেঘের গর্জনের মধ্যে তাঁরা বজ্রপাতের শিকার হন। এতে ঘটনাস্থলেই আবুল হাসেম মারা যান। আহত অবস্থায় তাঁর ছেলে হৃদয়কে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়।

gach লালপুরে গাছ থেকে পড়ে কৃষকের মৃত্যু

বুধবার, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০