সংবাদ শিরোনাম
গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষকদের ফাঁসির দাবিতে আদালত প্রাঙ্গণে স্লোগান | এমসি কলেজে গণধর্ষণ: আসামিদের পক্ষে দাঁড়াননি কোনো আইনজীবী | করোনায় জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি শামসুল হকের মৃত্যু | শেখ হাসিনাকে জন্মদিনের উপহার পাঠালেন মমতা ব্যানার্জি | সমঝোতা হয়নি, আপাতত টাইগারদের শ্রীলংকা সফর হচ্ছে না | হাসিনা-মোদি বৈঠক ডিসেম্বরে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী | পাকিস্তানে নওয়াজ শরিফের ভাই শেহবাজ গ্রেফতার | গ্রীসে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত মমিন ও শাহীনকে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষ বিদায় | মির্জাপুরে টিনশেট নামাতে গিয়ে বিদ্যুতস্পৃষ্টে কাঠমিস্ত্রির মৃত্যু | বগুড়ায় ৭৪ পাউন্ডের কেক কেটে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন |
  • আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেল পাকিস্তান

৫:২৪ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জুন ৫, ২০২০ আন্তর্জাতিক
pakk

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে করোনাভাইরাস। বেশ কিছুদিন আগেই সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যায় করোনার কেন্দ্রস্থল হিসাব পরিচিত চীনকে ছাড়িয়ে গেছিলো ভারত। এবার চীনকে ছাড়ালো তাদের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানও।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষদিকে করোনা মহামারির উৎপত্তি হয়েছিল চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে। শুরুর দিকে এই দেশটিতেই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছিল। কিন্তু তারা গত মার্চ থেকেই করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে সক্ষম হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডওমটিারের সর্বশেষ তথ্যে জানানো যায়, পাকিস্তানে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৯ হাজার ২৪৯ জনে। পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যেতে পারে বলে সরকারকে জানিয়েছেন দেশটির চিকিৎসকেরা। অপরদিকে চীনের সরকারি হিসাবে দেশটিতে মোট কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ৮৪ হাজার ১৭১।

বৃহস্পতিবারে দেশটিতে কোভিড-১৯ আক্রান্ত ৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ডন। সব মিলিয়ে পাকিস্তানে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৮১৬তে। এর মধ্যে পাঞ্জাবেই সবচেয়ে বেশি ৬০৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সিন্ধু ও খাইবার পাখতুনখোয়াতে মৃত্যু ৫০০র ঘর ছাড়িয়ে গেছে।

এদিকে ভারতে কোভিড-১৯ এ শনাক্ত আক্রান্তের সংখ্যা সোয়া দুই লাখ ছাড়িয়ে গেছে, মৃত্যু ৬ হাজার পেরিয়ে ছুটছে ৭ হাজারের দিকে। বৃহস্পতিবার থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে রেকর্ড ৯ হাজার ৮৫১ জনের দেহে প্রাণঘাতী ভাইরাসটির উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে, ওই একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ২৭৩ জনের।

মোট দুই লাখ ২৬ হাজার ৭৭০ আক্রান্তের মধ্যে এক লাখ ৯ হাজার ৪৬২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন বলেও ভারতের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন। শনাক্তদের মধ্যে আক্রান্ত তুলনায় সুস্থতার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৮ দশমিক ২৭ শতাংশে।