• আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পুলিশ কমিশনারকে ‘ঘুষ প্রস্তাব’ যুগ্ম কমিশনারের, শীর্ষ মহলে তোলপাড়

১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, জুন ৬, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেন তাকে পার্সেন্টেজ (সুবিধা) গ্রহণের প্রস্তাব দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

অনৈতিক এই প্রস্তাবে কমিশনার চরম ক্ষুব্ধ ও বিব্রত। তবে তিনি বিষয়টি গোপন রাখেননি। সারা জীবন নীতির সঙ্গে আপসহীন ডিএমপি কমিশনার বিষয়টিকে সহজে মেনেও নিতে পারেননি। তাই অভিযুক্ত কর্মকর্তাকে দুর্নীতিপরায়ণ আখ্যায়িত করে তাকে জরুরি ভিত্তিতে বদলি করার প্রস্তাব দিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শকের (আইজিপি) কাছে।

এদিকে এ ঘটনায় পুলিশের শীর্ষপর্যায়ে তোলপাড় চলছে। একজন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্মকর্তাকে ঘুষ পার্সেন্টেজ দেয়ার প্রস্তাব সংক্রান্ত খবর শুনে রীতিমতো স্তম্ভিত ডিএমপির সব পর্যায়ের কর্মকর্তা।

জানা গেছে, ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (অতিরিক্ত ডিআইজি) ইমাম হোসেনকে অন্যত্র বদলির বিষয় উল্লেখ করে কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম আইজিপিকে লেখা দাফতরিক পত্র দিয়েছেন ৩০ মে। চিঠির স্মারক নং- ডিএমপি (সঃদঃ)/প্রশাসন/এ-৫১-২০২০/১০০৮।

আইজিপির উদ্দেশ্যে লেখা চিঠিতে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘উপর্যুক্ত বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে, ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেন একজন দুর্নীতিপরায়ণ কর্মকর্তা। ডিএমপির বিভিন্ন কেনাকাটায় তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। তদুপরি তিনি ডিএমপির কেনাকাটায় স্বয়ং পুলিশ কমিশনারের কাছে পার্সেন্টেজ গ্রহণের প্রস্তাব উপস্থাপন করেছেন। ফলে ওই কর্মকর্তাকে ডিএমপিতে কর্মরত রাখা সমীচীন নয় মর্মে প্রতিয়মান হয়েছে।

এমতাবস্থায় তাকে জরুরি ভিত্তিতে অন্যত্র বদলির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হলো।’ আইজিপির পাশাপাশি চিঠিতে পুলিশ সদর দফতরের ডিআইজিরও (অ্যাডমিন অ্যান্ড ডিসিপ্লিন) দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে।

চিঠির বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপি কমিশনার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বিষয়টি পুলিশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করব না।’

উল্লেখ্য, ইমাম হোসেন ২০১২ সালে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার হিসেবে যোগ দেন। পরবর্তী সময়ে ডিএমপির উপ-কমিশনার (ডিসি-অর্থ) ও ডিসি-লজিস্টিকস পদে দায়িত্ব পালন করেন।