হবিগঞ্জে টানা বৃষ্টি ও ঢলে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, শাক সবজিসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

১:২১ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ৭, ২০২০ দেশের খবর, সিলেট

মঈনুল হাসান রতন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি- টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে শাক-সবজি ও নানা ফসলের।

পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট আগাম বন্যায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ১০টি গ্রাম। ঢলের পানিতে তলিয়ে গেছে ওই এলাকার বিভিন্ন রাস্তাঘাট। অনেক বাড়িঘরে উঠেছে পানি। কয়েক ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে একরের পর একর আউশ ধানের মাঠ আর সবজিতলা। হঠাৎ পাহাড়ি ঢলে এলাকা প্লাবিত হওয়ায় অনেক পুকুরের মাছ পানিতে ভেসে গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শায়েস্তাগঞ্জে গত তিনদিন ধরে থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে অনেক এলাকায় জলমগ্ন হয়ে পড়ে। এরই মধ্যে নেমে আসে পাহাড়ি ঢল। টানা বৃষ্টি আর পাহাড়ি ঢলের কারণে শুক্রবার সকাল থেকে উপজেলার নুরপুর ও শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়নের কাজিরগাঁও, নিশাপট, মররা, ডাকিজাঙ্গাল, লাদিয়া, চানপুর, আলগাপুর ও চরহামুয়াসহ বেশ কিছু এলাকায় বন্যা দেখা দেয়। পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় ওই দুই ইউনিয়নের ১০ গ্রামের ৮০০ একর ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশেষ করে আউশ ধানের বীজতলা, বোনা আউশসহ সবজিতলা পানিতে তলিয়ে গেছে।

এদিকে, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে খরস্রোতা খোয়াই ও সুতাং নদীর পানি শনিবার দুপুর ২টায় বিপৎসীমার কাছ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। খোয়াই নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে প্রতিরক্ষা বাঁধ অনেকটা নড়বড়ে হয়ে পড়েছে। এভাবে পানি বৃদ্ধি পেলে শায়েস্তাগঞ্জে বন্যার আশঙ্কা রয়েছে।

শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আম্বিয়া খাতুন বলেন, টানা বৃষ্টিপাত আর পাহাড়ি ঢলে শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়নের বেশ কয়েক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। অনেকের ফসলের ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে।

শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গাজীউর রহমান ইমরান বলেন, টানা বৃষ্টি আর পাহাড়ি ঢলে উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। মানুষের শাকসবজি ও মাছের খামারের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। উপজেলা থেকে এ বিষয়ে তালিকা করা হবে।