শ্রীপুরে চালককে খুন করে অটোরিকশা ছিনতাই, আটক ১

৬:০০ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ৭, ২০২০ অপরাধ
artok

মোশারফ হোসাইন তযু শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: শ্রীপুরে দশ বছর বয়সী হৃদয় নামের এক কিশোর চালককে খুন করে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ছিনিয়ে নিয়ে বিক্রি করার সময় ইমন (২০) নামের এক যুবককে আটক করেছেন পুলিশ।

ঘাতক ইমনের বাড়ি ময়মনসিংহের গফরগাঁও গ্রামে। তার বাবার নাম সুমন মিয়া। ইমন উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের ফকিরপাড়ায় নানা শহর আলীর বাড়িতে থেকে অটোরিকশার মিস্ত্রির কাজ শিখতো। ঘাতক ইমনের দেওয়া তথ্যমতে নিহত হৃদয়ের নিথর দেহ উপজেলার নয়নপুর- বরমী সড়কের দরগাচালা মাঝের টেক এলাকার গভীর বনের ভেতর থেকে শনিবার দিবাগত গভীর রাতে উদ্ধার করা হয়।

নিহত হৃদয় উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে। সে মোড়লপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। অভাবের তাড়নায় পড়াশোনার পাশাপাশি হৃদয় তার চাচার অটোরিকশা চালাতো।

হৃদয়ের স্বজনদের বরাত দিয়ে শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশীষ কুমার দাস জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যার দিকে ইমন নামের একজন অটোরিশকার মিস্ত্রি রিকশার ব্যাটারি কিনবে বলে হৃদয়কে নিয়ে যায়। পরে দরগারচালা এলাকায় মাঝের টেক নামক স্থানে জঙ্গলের ভিতরে হৃদয়কে হত্যা করে অটোরিকশাটি ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ সময় পাঠান টেক তোফায়েল নামের এক গ্যারেজ মালিকের কাছে অটোরিকশাটি ৩৫ হাজার টাকায় বিক্রি করতে গেলে গ্যারেজ মালিক ইমনের মায়ের কাছে অটোর ব্যাপারে জানতে চাইলে ইমনের মা জানান তাদের কোন অটোরিকশা নেই। পরে নিহতের পরিবারের কাছে ইমনের মা অটোরিকশাটি ফেরত দিতে গেলে হৃদয় কোথায় জানতে চাইলে ইমন অনর্থক কথাবার্তা বলতে শুরু করে। পরে স্থানীয়দের চাপের মুখে পড়ে হৃদয়কে খুন করার বিষয়টি স্বীকার করেন।

পুলিশ আরো জানান, মরদেহ উদ্ধারের সময় নিহতের মুখে ও গলায় রশি দিয়ে বাঁধা ছিলো। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।