• আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নারী কণ্ঠে প্রবাসীদের ফাঁদে ফেলাই ওদের কাজ!

৬:২৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ৮, ২০২০ দেশের খবর

অসীম কুমার সরকার, তানোর (রাজশাহী) সংবাদদাতা: প্রতিনিয়ন অনলাইনে যৌন প্রতারণার শিকার হচ্ছেন হাজারো পুরুষ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফেসবুক কিংবা ইমোতে কিছু ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে প্রবাসীদের টার্গেট করে ফাঁদ পেতেছে কতিপয় দুষ্কৃতিকারী।

ফাঁদে পা দেওয়া পুরুষদের জিম্মি করে তাদের কাছ থেকে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে অপরাধী চক্র। যাদের যৌনতার ফাঁদে পা দিয়েও অনেকেই লোকলজ্জার ভয়ে হয়তো মুখ খোলে না।

অনুসন্ধান চালিয়ে অনলাইনে অর্থের বিনিময়ে যৌনতার ফাঁদ পেতে প্রবাসীদের অর্থ হাতিয়ে নেওয়া একটি নগ্ন চ্যাটিং চক্রের ৬ প্রতারককে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতরা ১৮ থেকে ২৫ বছর বয়সের যুবক। এরা সবাই আইটি বিষয়ে দক্ষ। গত ২ দিনে (শনিবার ও শুক্রবার) অভিযান চালিয়ে উপজেলার সুলতানপুর-করারি নওশারা গ্রামে থেকে তাদের আটক করা হয়েছে।

আটকৃতরা হলো, উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের বাদশার ছেলে রুবেল (২৫), আরমানের ছেলে পল্লব (২৫),মানিকের ছেলে মনি (২২),সুলতানপুর পূর্বপাড়ার শরিফলের ছেলে আল আমিন (২১),সুলতানপুর দক্ষিণ পাড়ার রাজ্জাকের ছেলে পারভেজ হাসান পিয়াস (১৮) ও লালপুর উপজেলার মমিনপুর গ্রামের ইনতাদুল হকের ছেলে বিপ্লব হোসেন ডলটন (২২)।

একটি মামলায় অভিযান চালাতে গিয়ে বিষয়টি নজরে নিয়ে অনুসন্ধান চালানো হয়। ওই সময় জনৈক ইসরাইলের বন্ধ চায়ের দোকান থেকে ৩ জনকে আটক করে ২ কেজি গাঁজা ও এক’শ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধ চক্রের আরো ৩ জনকে পরে আটক করা হয়েছে।

জানা গেছে, এই সংঘবদ্ধ গ্রুপটি প্রতারণা, অর্থ-আত্মসাৎ ও মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তারা নিজ নিজ এলাকায় ইমো পার্টির সদস্য হিসেবে পরিচিত। এই চক্র সংঘবদ্ধভাবে প্রবাসীদের সঙ্গে প্রতারণা করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রবাসী নামে বিভিন্ন ফেসবুক পেজ, গ্রুপ খুলে প্রবাসীদের অ্যাড করে। সেসব পেজ কিংবা গ্রুপে কিছু মেয়েকে লাইভে এ্যাড করে। পাশাপাশি চ্যাটিংয়ের মাধ্যমে যোগাযোগ করে ফোন নম্বর সংগ্রহ করে। তাদের প্রধান টার্গেট প্রবাসী বাংলাদেশি। ধারণা করা হচ্ছে এ ধরনের প্রতারণার সাথে অনেকেই জড়িত রয়েছে।

পুলিশ জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। এছাড়া তাদের বিকাশ অ্যাকাউন্টে অর্থ লেনদেনের প্রমাণ পাওয়া গেছে। এদের প্রত্যেকেই বির্ভিন্ন কোম্পানির স্মার্টফোন ব্যবহার করে। ওই ফোনে ম্যাজিক ভয়েজ সফটওয়্যার দেওয়া রয়েছে। তাদের ব্যবহৃত ৫টি স্মার্ট ফোন জব্দ করা হয়েছে।

বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, প্রতারক চক্রটি বাঘা-লালপুর এলাকায় বেশ কিছুদিন ধরে সুন্দরী নারিদের ছবি ব্যবহার করে বিডি কল গার্ল, হট ইমো কল গার্ল, বিডি কিউট গার্ল প্রভৃৃতি নামে ফেইক ফেইসবুক পেইজ ব্যবহার করে আসছে। ওই পেইজে সুন্দরী নারীদের ছবি দেখিয়ে এবং তাদের নামে বিভিন্ন কমেন্টের মাধ্যমে একে অপরের মোবাইল নম্বর আদান-প্রদান করে। নম্বর আদান-প্রদানের পর তারা মোবাইল ফোনে ম্যাজিক ভয়েস এর মাধ্যমে কন্ঠস্বর পরিবর্তন করে, মেয়ে কন্ঠে ছবি দেখিয়ে থাকে।

পরে তারা দেখা করার কথা বলে ইমোশনাল ব্লাক মেইল করে বিভিন্ন জনের কাছে থেকে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। তাদের বিরুদ্ধে বাঘা থানায় পৃথক দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এর একটি ডিজিটাল নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ২৪(২)(৩)ধারাসহ আরেকটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে। অপরাধ চক্র সম্পর্কে আরো অনুসন্ধান চালানো হবে এবং এ বিষয়ে অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান ওসি।