সংবাদ শিরোনাম
এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ধর্ষকদের কঠোর শাস্তির দাবিতে ছাত্রলীগের মানববন্ধন | করোনায় বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ৯ লাখ ৯২ হাজার ছাড়াল | এমসি কলেজে ধর্ষণ: আরেক আসামি অর্জুন গ্রেপ্তার | দিনাজপুরে দেয়াল চাপায় একই পরিবারের ৪ জনের মৃত্যু | এমসি কলেজে গণধর্ষণ: প্রধান আসামি সাইফুর গ্রেপ্তার | দ্বিপক্ষীয় বিষয় নিয়ে বাংলাদেশ-সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফোনালাপ বিকেলে | স্ত্রীর মামলায় সংগীত পরিচালক শওকত ইমন কারাগারে | ঘাটাইলের সাগরদিঘী সড়কে জনদুভোর্গ চরমে | “খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি, নিজে খেতে পারছেন না” | স্বামীকে আটকে রেখে তরুণীকে গণধর্ষণের মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার |
  • আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পশ্চিমবঙ্গে আবারো বাড়ানো হল লকডাউনের সময়সীমা

৮:১১ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক
wsss

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানো হয়েছে। সোমবার নবান্নে এক সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যে লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের সাম্প্রতিক করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করেই রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মমতা বলেন, যেরকম চলছিল ঠিক সেরকম টি চলবে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত। এর আগে ১৪ জুন পর্যন্ত লকডাউন এর ঘোষণা করেছিলেন মমতা।

গত শনিবার ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিল, ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন চলবে। তবে লকডাউনের এই পর্বে সবকিছু বন্ধ থাকবে না। ধাপে ধাপে শিথিল হবে। প্রথম ধাপ হচ্ছে আনলক ১।

এই ধাপে ৮ জুন অর্থাৎ থেকে সারা দেশে সব রেস্তোরাঁ, শপিংমল, ধর্মস্থান নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে খুলে গিয়েছে। এমনকি খুলে দেয়া হয়েছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। সরকারি দপ্তরে ৭০% কর্মী নিয়ে পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত চালানো হবে কার্যক্রম।

এদিকে, করোনার সংক্রমণ এড়াতে বাসের চেয়ে বাইক-সাইকেল অনেক বেশি নিরাপদ বলে মনে করছেন সাধারণ মানুষ। গত কয়েকদিনে লাফিয়ে বেড়েছে সাইকেল-বাইক কেনার হিড়িক। কলকাতার রাস্তায় গত কয়েক সপ্তাহে সাইকেলের সংখ্যা বেড়েছে। সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখেই এদিন কলকাতার ছোট এবং মাঝারি রাস্তা গুলোতে এবার সাইকেল চালানোর অনুমতি দিল রাজ্য সরকার।

ভাতের স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সোমবার বিকাল পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ১৮৭। মৃত্যু হয়েছে মোট ৩৯৬ জনের।