ঘুষের প্রস্তাব দেওয়া ডিএমপির সেই যুগ্ম কমিশনারকে বদলি

৩:৫৯ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, জুন ৯, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর, ঢাকা- ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামকে ‘পার্সেন্টেজ নেওয়ার প্রস্তাব’ দেওয়া ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেনকে বদলি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ জুন) ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে ইমাম হোসেনসহ যুগ্ম পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার তিন কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়।

এর আগে গত ৩০ মে ডিএমপি কমিশনারের পক্ষ থেকে পুলিশ সদর দফতরে পাঠানো এক চিঠিতে ইমামকে বদলির সুপারিশ করেছিলেন কমিশনার। এর মাত্র ১০ দিনের মাথায় তাকে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্ট-পিওএম) হিসেবে বদলি করা হলো।

সূত্র জানায়, ডিএমপির যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেনকে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (পিওএম) হিসেবে, যুগ্ম কমিশনার (পিওএম) অতিরিক্ত দায়িত্বে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (প্রটেকশন অ্যান্ড ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি) মোহা. আবদুল মালেককে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (প্রটেকশন অ্যান্ড ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি) ও বদলি করা হয়েছে।

এছাড়া একই আদেশে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (ট্রান্সপোর্ট) মঈনুল হককে যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (লজিস্টিকস) হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে।

এরইমধ্যে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারকে (ডিএমপি) ‘ঘুষ’ দিতে চাওয়ার অভিযোগ ওঠে যুগ্ম কমিশনার ইমাম হোসেনের বিরুদ্ধে। পরে তাঁকে ‘দুর্নীতির’ কারণে বদলি করতে আইজিপি বরাবর চিঠি পাঠান ডিএমপি কমিশনার। এ নিয়ে পুলিশের উর্ধ্বতনদের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়। ওই চিঠি কী করে ফাঁস হলো, তার তদন্ত চলছে। সেইসঙ্গে ডিএমপি কমিশনারের সহকর্মী মো. ইমাম হোসেনের বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ তদন্ত করবেন বলেও জানা গেছে।

এ বিষয়ে গত ৩০ মে পুলিশ মহাপরিদর্শকের কাছে একটি চিঠি পাঠান শফিকুল, যাতে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (লজিস্টিকস) মো. ইমাম হোসেনকে ‘দুর্নীতিপরায়ণ’ আখ্যায়িত করে তাঁকে জরুরি ভিত্তিতে বদলির সুপারিশ করা হয়।

চিঠিতে বলা হয়, ‘ডিএমপির বিভিন্ন কেনাকাটায় তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। তদুপরি তিনি ডিএমপির কেনাকাটায় স্বয়ং পুলিশ কমিশনারের কাছে ‘পার্সেন্টেজ’ গ্রহণের প্রস্তাব উপস্থাপন করেছেন। ফলে ওই কর্মকর্তাকে ডিএমপিতে রাখা সমীচীন নয় মর্মে প্রতীয়মান হয়েছে।

তাঁর ওই চিঠি নিয়ে এরই মধ্যে গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। ‘ঘুষের প্রস্তাব’ পেয়ে সহকর্মীর বদলি চেয়ে ডিএমপি কমিশনারের চিঠি দেওয়ার কথা স্বীকার করে শফিকুল ইসলাম গত শনিবার বলেন, ‘বিষয়টি একবারেই অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে অফিসিয়াল গোপনীয় এই প্রতিবেদন কীভাবে মিডিয়ার কাছে গেছে, সে ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে।’