সংবাদ শিরোনাম
পদ্মায় অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন দুই শতাধিক লঞ্চযাত্রী | মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের উপর হামলা, আটক ১ | স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রসূতি নারীকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ নার্সদের বিরুদ্ধে | স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ: ফরিদপুরে এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড | এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে ধর্ষণকাণ্ডে আরেক ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার | ‘নারীর দিকে আড়চোখে তাকাবে, এমন কর্মী ছাত্রলীগে নেই’- লেখক | এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ছাত্রলীগকর্মী রনির পর গ্রেফতার রবিউল | শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন আজ | কুড়িগ্রামে আবারো বন্যা, ঘর-বাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় দুর্ভোগে মানুষজন | এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে ধর্ষিতা গৃহবধূর জবানবন্দি |
  • আজ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে পুলিশের উপর হামলায় ৪৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

৮:১৭ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, জুন ১২, ২০২০ রংপুর
plooo

শাহ আলম শাহী, স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকেঃ দিনাজপুরে স্বেচ্ছাসেবক এবং ছাত্রলীগের দু’নেতাকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ঘেরাও এবং সংঘর্ষের ঘটনায় ৪৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। পুলিশ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে এই মামলা করেছেন।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোজাফফর হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইমাম আবু জাফর রজব এবং দিনাজপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ সুজনকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে কোতয়ালি থানার সামনে এ সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ১৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়। তাই পুলিশ ৪৭ জনের নামসহ অজ্ঞাতনামা ২০ থেকে ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে।

মামলা দায়েরের বিষয়টি এ প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের কোতয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে দিনাজপুর জেলা ইমাম আবু জাফর রজবকে দিনাজপুরের হাজী মোহম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) ২০১৫ সালের দু’জন শিক্ষার্থীকে হত্যা মামলাসহ আরো বেশ কয়েকটি সুনির্দিষ্ট মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়। একই দিনে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে দিনাজপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ সুজনকে হত্যা মামলা ও অবৈধভাবে জমি দখলের বিরুদ্ধে কয়েকটি সুনির্দিষ্ট মামলায় গ্রেপ্তার করে কোতয়ালি থানা পুলিশ।

পুলিশ এ দুই নেতাকে বিকালে থানায় নিয়ে আসলে দিনাজপুর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া জাকির ও জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর ইসলাম রাহুলের নেতৃত্বে সমর্থকরা মুক্তির দাবিতে থানা ঘেরাওয়ের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে পুলিশের ওপর চড়াও হয়ে ইটপাটকেল ছুঁড়ে তারা। পরে পুলিশের লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ ঘটনায় ১৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়।

পরে কড়া নিরাপত্তায় জেলা জজকোর্টে হাজির করে কারাগারে পাঠানো হয় দুই নেতাকে। থানা ঘেরাও ও পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই একটি মামলা দায়ের করে কোতয়ালি থানা পুলিশ। কাদের এই মামলার আসামি করা হয়েছে এ বিষয়ে কোতয়ালি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি এখন নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি।

তিনি বলেন, যারা থানার সামনে থেকে সবাইকে উস্কে দিয়ে থানা ঘেরাও ও পুলিশের ওপর হামলা চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধেই এই মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় আমাদের ১৪ জন পুলিশ সদস্যকে বৃহস্পতিবার থানার সামনে কিছু ব্যক্তি ইটপাটকেল মেরে ও লাঠি দিয়ে আঘাত করে আহত করেছে। যে ৪৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে তাদের নাম প্রকাশ করলে তারা আত্মগোপনে যেতে পারেন। আমরা অভিযান চালাচ্ছি আসামিদের ধরার জন্য। পরবর্তীতে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

গ্রেফতারকৃত দুই নেয়াকে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের জোড়া খুনসহ অন্যান্য মামলার জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে বলেও জানান পুলিশ।

এদিকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা আবু ইবনে রজব এবং ছাত্রলীগের নেতা সুজনের মুক্তির দাবী করেছে দলীয় নেতা-কর্মীরা। দু’নেতার মুক্তির দাবীতে ফেসবুক সরব করে তুলেছেন তারা।