চলে গেলেন ‘লিভিং ঈগল’ সাইফুল আজম

২:৪০ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, জুন ১৫, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ
livv

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ পাবনা-৩ আসনের (চাটমোহর উপজেলা, ফরিদপুর উপজেলা ও ভাঙ্গুড়া উপজেলা) সাবেক সংসদ সদস্য সাইফুল আজম আর নেই। রোববার সকালে ঢাকার মহাখালি ডিএসএইচও’র তার নিজ বাস ভবনে তিনি ইন্তেকাল করেন। (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর।

সোমবার (১৫ জুন) বাদ জোহর বিমান বাহিনী হ্যাঙ্গারে জানাযা শেষে তাকে বিমান বাহিনীর কবরস্থানে দাফন করা হবে।

১৯৬৭ সালের ইরাক যুদ্ধে অংশ নেন তিনি। যুদ্ধে একটি ইসরাইলি বিমান ভূপাতিত করেন এবং আরেকটিকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে সক্ষম হন। এ কারণে সাইফুল আজমকে ‘লিভিং ঈগল’ বলা হয়।

১৯৪১ সালে পাবনা জেলার খগড়বাড়িয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এই সাইফুল আজম। উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পাশ করে ১৯৫৬ সালে উচ্চতর শিক্ষার্থে পশ্চিম পাকিস্তান যান। ১৯৬০ সালে জিডি পাইলট ব্রাঞ্চের একজন পাইলট হন তিনি। ১৯৭১ সালের পূর্বে তিনি পাকিস্তান বিমান বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর তিনি বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে যোগ দেন।

সাইফুল আজম তার বর্ণাঢ্য জীবনে নিজেই কিংবদন্তির ইতিহাস রচনা করেছিলেন। পৃথিবীর ২২ জন “লিভিং ঈগলের” মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। নিজ জীবদ্দশায় তিনি চারটি দেশের (জর্ডান, ইরাক, পাকিস্তান, বাংলাদেশ) পাইলট হয়ে আকাশে রাজত্ব করেছেন, ভূপতিত করেছেন সর্বোচ্চ সংখ্যক ইজরায়েলি ফাইটার! ভারত এবং ইজরায়েলে পাইলটদের চোখে তিনি ছিলেন এক মূর্তিমান আতঙ্ক!

তার মৃত্যুতে বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মোঃ মফিদুর রহমান গভীর শোক ও দুঃখপ্রকাশ করেছেন। তিনি এক শোকবার্তায় বেবিচকের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ হতে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।