সংবাদ শিরোনাম
  • আজ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চীনের ৪৩ সৈন্য হতাহত, দাবি ভারতের

১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ | বুধবার, জুন ১৭, ২০২০ আন্তর্জাতিক
chaina

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লাদাখ সীমান্তের গালওয়ান উপত্যকায় ভারত ও চীন সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হয়েছে। ভারতের সেনা বাহিনীর সূত্রের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

২০ সেনা নিহতের বিষয়টি স্বীকার করে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে জানিয়ে ভারতের সেনা বাহিনীর বরাত দিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দেশটির সংবাদ সংস্থা এএনআই।

ভারতের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পূর্ব লাদাখে উত্তেজনা প্রশমনের চেষ্টা চলাকালীন চীনা সেনারা ‘একতরফাভাবে’ স্থিতিশীলতা পরিবর্তনের চেষ্টার কারণেই গালওয়ান উপত্যকায় এই সহিংস ঘটনা ঘটেছে। চীনা সেনারা উচ্চ পর্যায়ের চুক্তি অনুসরণ করলে এই পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব হতো।

এদিনের সহিংসতায় ভারতের ২০ সেনা প্রাণ হারিয়েছেন এবং নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও জানিয়েছে এএনআই। সীমান্তের এই সংঘর্ষে প্রথমে ভারতের এক কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা ও দু’জন সেনা জওয়ান নিহত হয়েছেন বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল।

এর আগে, ১৯৭৫ সালে ভারত-চীন সীমান্তে শেষবার কোনও সেনা জওয়ানের মৃত্যু হয়েছিল। এরপর থেকে ওয়েস্টার্ন সেক্টরে লাদাখে বা ইস্টার্ন সেক্টরে অরুণাচলে দুই দেশের বাহিনীর মধ্যে হাতাহাতি-মারামারি কম হয়নি। কিন্তু এ ধরনের প্রাণঘাতী মারামারি কখনও হয়নি। অবাক করার বিষয়, এই সংঘাতে কোনও পক্ষই আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করেনি। লোহার রড, লাঠি, পাথর নিয়ে হামলা করেছে চীনা সেনা। তারপরই প্রত্যাঘাত করেছে ভারতীয় সেনারা।

ঘটনার পর পর ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং দেশটির সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং বিমানবাহিনীর প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করেন। প্রায় ৯০ মিনিট ধরে চলা এ বৈঠকে ভারতের চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকরও উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত হয়েছে তা জানা যায়নি।

তবে চীনের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও হতাহতের প্রকৃত সংখ্যা জানানো হয়নি। তবে ভারতীয় সৈন্যদের বিরুদ্ধে সীমান্ত অতিক্রম করে চীনা ভূখণ্ডে প্রবেশের অভিযোগ এনেছে বেইজিং।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝ্যাও লিজিয়ান বলেছেন, ভারতীয় সৈন্যরা সোমবার অন্তত দু’বার সীমান্ত অতিক্রম করে অনুপ্রবেশের পর চীনা কর্মকর্তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। যে কারণে দু’পক্ষের সৈন্যদের গুরুতর শারীরিক সংঘাত হয়েছে। সৈন্যদের সীমান্ত অতিক্রম এবং সংঘাতে জড়ানোর এ ঘটনায় দিল্লির কাছে কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বেইজিং।