সংবাদ শিরোনাম
মানিকগঞ্জে সাংবাদিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে সহকর্মীদের মানববন্ধন | সন্তানকে বিক্রি করে দিলেন বাবা: ইউরিয়া খেয়ে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্ঠা! | আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া-মোনাজাত | লাশের মিছিল বেড়েই চলেছে, তবুও আলোচনায় নারাজ আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান | বাংলাদেশের সাথে বন্ধ থাকা স্থলবন্দর খুলে দিতে ভারতকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ | কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ’র মৃত্যুতে দেশে একদিনের রাষ্ট্রীয় শোক | ইয়াবা দিয়ে ‘ফাঁসাতে’ গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলেন এএসআই | কাল হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন ইউএনও ওয়াহিদা | খালেদার যুক্তরাজ্যে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে চান ডিকসন | আবারো দলকে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান মেসির |
  • আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মাগুরায় ১ হাতে ভ্যানগাড়ি চালিয়ে সংসার চালান প্রতিবন্ধী ইয়ার আলী

১২:৪১ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুন ২২, ২০২০ খুলনা, দেশের খবর

মতিন রহমান, মাগুরা প্রতিনিধি- জীবন যুদ্ধে জীবিকার তাগিদে ছুটে চলা এক লড়াকু সৈনিকের নাম ইয়ার আলী। বয়স মাত্র ২৫ বছর। জন্ম থেকেই একটি হাত ও দুটি পা অচল অবস্থায় তার। তবুও ঘরে বসে না থেকে পেটের খিদে মেটাতে উপার্জনের জন্য বেছে নিয়ে একটি মোটরচালিত ভ্যানগাড়ি। প্রতিদিন জীবিকার তাগিদে এক এলাকা থেকে আরেক এলাকায় ছুটে চলতে হয় তাকে।

প্রতিবন্ধী ইয়ার আলীর বাড়ি মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের খলিশাখালী গ্রামে।

তার পিতা-মাতাসহ মোট ৭ জন পরিবারের সদস্যের সংসার তাদের। পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে ইয়ার আলী সবার বড় হওয়ায় সংসারে দায়িত্বটাও তার একটু বেশি। দু’ভাইয়ের পড়াশোনার খরচসহ সংসারের অনেক কিছু তার মেটাতে হয়।

প্রতিবন্ধী ইয়ার আলীর পিতা ইদ্রিস জোয়াদ্দার (৬৫) পেশায় একজন কৃষক। তাই সাত সদস্যের সংসারে অনেক টানা পিড়নের ছোঁয়া রয়েছে। তার উপর আবার বড় সন্তান প্রতিবন্ধী।

ইয়ার আলী মোটরচালিত ভ্যানগাড়িটি এক হাত দিয়ে চালাতে হয় তাকে। তাই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমন ভয়ে তার গাড়িতে উঠতে অনেক প্যাসেঞ্জারের মনে এই ভাবনা আসে বলেও জানায় সে।

ইয়ার আলী জানায়, সে প্রতিবন্ধী ভাতা পায়। কিন্তু বড় সংসারে খরচ মেটাতে প্রতিদিন ভ্যানগাড়ি নিয়ে ছুটতে হয় তাকে। প্যাসেঞ্জার হোক বা না হোক সংসার তো চালাতে হবে! তাই লোকের কাছে সাহায্য সহযোগিতার জন্য হাত বাড়িয়ে দিতে বাধ্য হতে হয় তাকে। পেটের খিদে মেটাতে মোটেই কার্পূন্যতা নেই তার।

পরিবার ও সচেতন মহলের দাবি প্রতিবন্ধী ইয়ার আলীকে সরকারি সম্মানী ভাতার পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্দ্যোগে সহযোগিতার হাত বাড়ানো গেলে এই করোনা প্রাদুর্ভাবের সময় সে অনেক উপকৃত হবে।