সংবাদ শিরোনাম
ধর্ষণে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সাইফুরের রুম থেকে অস্ত্র উদ্ধার | স্ত্রী-সন্তান নিয়ে ভাঙা কুটিরে মানবেতর জীবন যাপন করছেন আ.লীগ নেতা বাচ্চু | উইঘুর সংস্কৃতি বিলুপ্ত করতেই হাজার মসজিদ ধ্বংস করে চীন | যে কারণে এই মুহূর্তে সরকার পতনের আন্দোলন করবেন না নুর | টাঙ্গাইলে বন্যায় সড়ক বিভাগের ৬০ কিলোমিটার রাস্তার ক্ষয়ক্ষতি | এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ, ছাত্রলীগের যাদের খুঁজছে পুলিশ | মসজিদে নামাজ পড়তে আসলেই উপহার পাচ্ছে শিশুরা | স্কুলছাত্রী নীলা হত্যার প্রধান আসামি মিজান গ্রেফতার | করোনায় বিশ্বে ২০ লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে: ডব্লিউএইচও | এমসি কলেজ হোস্টেলে স্বামীকে বেধে স্ত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে |
  • আজ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

স্বামীর গলায় অস্ত্র ঠেকিয়ে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ‘ধর্ষণ’

১২:৫২ অপরাহ্ণ | বুধবার, জুন ২৪, ২০২০ অপরাধ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্ক- চাঁদপুরের রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের দুর্গম লক্ষ্মীরচরে এক গৃহবধূ (৩০) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এই ঘটনার পর দুইদিন ধরে অবরুদ্ধ ছিল তার পরিবার। পরে গত সোমবার গ্রাম পুলিশের সাহায্যে তারা ওই চর থেকে ট্রলারে করে পালিয়ে জেলা শহরে এসে আশ্রয় নেন।

ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূকে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর স্বামী চারজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও দুইজনসহ মোট ছয়জনের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শনিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ৭/৮ জনের একদল দুর্বৃত্ত তাদের ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে এবং তার স্বামীকে গলায় ধারাল অস্ত্র ঠেকিয়ে পর্যায়ক্রমে তাকে ধর্ষণ করে। ঘটনা জানাজানি হলে তার গোটা পরিবারকে গুম করা হবে বলেও হুমকি দেয় দুর্বৃত্তরা। এছাড়া ওই গৃহবধূ যাতে চিকিৎসা না নিতে পারে সেজন্য ওই পরিবারের সবাইকে দুইদিন অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

গ্রাম্য সালিশে ধর্ষকদের প্রকাশ্যে জুতা পেটা করা হলে দুর্বৃত্তরা আবারো ওই বাড়িতে হামলা চালায়। শেষ পর্যন্ত গ্রাম পুলিশের সহায়তায় সোমবার চাঁদপুর শহরে আশ্রয় নেয় পরিবারটি। পরে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিমুদ্দীনের সহযোগিতায় ওই গৃহবধূকে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ বলেন, রাতের আঁধারে তারা ঘরে ঢুকে গলায় অস্ত্র ঠেকিয়ে জানে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে পাশের রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে।তাদের হাতে পায়ে ধরে মাফ চাইলেও রেহাই না দিয়ে তারা নির্মমভাবে একের পর এক সবাই এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে। লোকলজ্জার ভয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু সন্তান থাকায় নিজের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছি। এখন শুধু প্রশাসনের কাছে একটাই দাবি, ধর্ষকদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক।

এ বিষয়ে রাজরাজেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হযরত আলী বেপারী বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনাটি দু:খজনক। ’ তবে এ নিয়ে আর কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

এ ঘটনায় যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান।

চাঁদপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহেদ পারভেজ চৌধুরী বলেন, মামলাটির তদন্ত এবং অভিযুক্ত আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) হারুনুর রশিদকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এলাকায় ঘুরে এসে ওসি (তদন্ত) হারুনুর রশিদ বলেন, ‘আমরা মঙ্গলবার বিকালে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। তবে আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামিরা সবাই পালিয়ে যায়। তাদের গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চলছে।’

ধর্ষিতার চিকিৎসা ও পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পর্কে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদৌলা রুবেল জানান, নির্যাতিতার শারীরিক অবস্থা এখন বেশ স্থিতিশীল। ধর্ষণের আলামত নিশ্চিত হবে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হবার পরে।