বাউফলের কালিশুরি-কাছিপাড়া সড়কের এ কী হাল!

১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, জুন ২৭, ২০২০ দেশের খবর, বরিশাল

কৃষ্ণ কর্মকার, বাউফল প্রতিনিধি- পটুয়াখালী বাউফল উপজেলার কালিশুরি-কাছিপাড়া ইউনিয়ন সড়কের বেহাল অবস্থা। দীর্ঘদিন সড়কটির কোন প্রকার সংস্কার না হওয়ায় সড়কের ইট, খোয়া, পাথর উঠে গিয়ে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি অবিরাম বর্ষার কারণে সড়কটি কাদামাটিতে একাকার হয়ে গেছে। বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে সকল প্রকার যোগাযোগ ব্যবস্থা। এর ফলে দুর্ভোগ বেড়েছে দুই ইউনিয়নসহ সংশ্লিষ্ট হাজার হাজার জনসাধারণের।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অর্থায়নে প্রায় ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেন ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। বছর না যেতেই সড়কটির বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়।

অভিযোগ রয়েছে, ওই সময়ে সড়ক নির্মাণে নিম্ন মানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার ও পরবর্তীতে সড়ক দিয়ে অপরিকল্পিত ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে এই বেহাল দশা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কালিশুরি-কাছিপাড়া এ সড়কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সড়কের দুই পাশে রয়েছে হাজেরা তালুকদার মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ছিটকা মহসিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পোনাহুরা ফাজিল মাদ্রাসা, ছিটকা প্রাথমিক বিদ্যালয়, রাজাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ কয়েকটি মাদ্রাসা।

এ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ শিক্ষকদের যাতাযাতের একমাত্র পথ এ সড়কটি। এছাড়াও কালিশুরি থেকে কম সময়ে জেলা সদরে যাওয়ার পথও এটি। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে যদি সড়কটি সংস্কার করা না হয় তাহলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে যাবে, না হয় বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি কমে যাবে।

উপজেলার ধুলিয়া স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক মো. ইসমাইল তালুকদার সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, এই সড়কটি দিয়ে তার প্রতিদিন কর্মস্থল যেতে হত। সড়কটির এমনই দশা যে জুতা পায়েতো দুরের কথা, খালি পায়ে যাওয়া কষ্টসাধ্য। অথচ সড়কটির দিকে সংশ্লিষ্টদের কোন নজর নেই। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার আগেই তিনি সড়কটির সংস্কার করার দাবি জানান।

স্থানীয় পরিবহন গাড়ির চালক নিজাম মীর বলেন, কালিশুরি, ধুলিয়া এই দুই ইউনিয়নের মানুষের জেলা সদরে যাতায়াতে অন্যতম পথ এ সড়কটি। দৈনিক হাজার হাজার যাত্রী যানবাহনে চলাচল করতো এ সড়ক দিয়ে। সম্প্রতি বাউফল–কালিশুরি মহাসড়ক সংস্কার শুরু হওয়ার কারণে এ অঞ্চলের ভরসা ছিল এ সড়কটি। সেটার বর্তমানে চলাচলের অনুপোযোগী।

কাছিপাড়া আব্দুর রশিদ চুন্নু মিয়া ডিগ্রী কলেজের সিনিয়র প্রভাষক বাবুল আক্তার বলেন, সড়কটি করুণ দশা যেন শনির দশার মতো চলছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাউফল উপজেলা প্রকৌশলী মো. সুলতান আহম্মেদ সময়ের কণ্ঠস্বরকে বলেন, তিনি সম্প্রতি যোগদান করেছেন। সড়কটির গুরুত্ব বিবেচনা করে দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজ সম্পূর্ণ করার চেষ্টা করা হবে।