সেমিস্টার ফি: চাপের মুখে নমনীয় গবি প্রশাসন

৪:১৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুন ২৭, ২০২০ শিক্ষাঙ্গন

ধীরা ঢালী, গবি সংবাদদাতা- বকেয়া সেমিস্টার ফি’র শতকরা ৫০ শতাংশ জমা দেওয়া সাপেক্ষে সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষায় অবতীর্ণ হওয়া যাবে বলে নিশ্চিত করেছেন গণ বিশ্ববিদ্যালয় (গবি) প্রশাসন।

শনিবার (২৭ জুন) শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার জানান, আগামী ১০ জুলাই মধ্যে যেসকল শিক্ষার্থী বকেয়া সেমিস্টার ফি জমা দেবে তাদের জরিমানা বাবদ ৫০০০ হাজার টাকা দিতে হবে না। ইতিমধ্যে যাদের জরিমানা নেওয়া হয়েছে, তাদের টাকা মূল অ্যাকাউন্টে যুক্ত করা হবে।

এছাড়া যে সকল শিক্ষার্থীদের প্রকৃতপক্ষে সমস্যা রয়েছে, তাদের ব্যাপারে প্রশাসন নমনীয় আচরণ করবে বলেও এ সময় আশ্বস্ত করেন তিনি।

এ আলোচনা গবি কেন্দ্রীয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ডা. হাদিউজ্জামান হাদি, কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম রলিফ, কোষাধ্যক্ষ খাদিজা আক্তার সেতু, ক্রীড়া সম্পাদক মাহতাবুর রহমান সবুজ, গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (গবিসাস) সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান মনি, গবি সাধারণ ছাত্র পরিষদের সভাপতি রনি আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান, জামিলুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ‘যথাসময়ে বকেয়া টাকা পরিশোধ করে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। অন্যথায় নিজের জীবন নিজেই ধ্বংস করবেন এবং এজন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না’ মর্মে বুধবার (২৪ জুন) শিক্ষার্থীদের সেমিস্টার ফ্রি দেওয়ার জন্য নোটিশ প্রদান করে গবি প্রশাসন।

এদিন, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় উঠে। ক্যাম্পাসের বর্তমান শিক্ষার্থীরা চলমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে এই নোটিশকে অমানবিক অভিহিত করে প্রতিবাদ জানান। এদিকে, নোটিশের ভাষা প্রয়োগ দেখে সাবেক শিক্ষার্থীরা ফেসবুকে নিন্দার ঝড় তুলেন।

জানা যায়, চলমান পরিস্থিতিতে আর্থিক সঙ্কটে পড়ায় উৎকন্ঠিত শিক্ষার্থীদের ছাত্র সংসদের মাধ্যমে যোগাযোগ করার জন্য কিছু ছাত্র প্রতিনিধি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দেন।

এ বিষয়ে ইঙ্গিত করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সেমিষ্টার ফি ছাড়া বা বকেয়া রেখে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের প্রতিশ্রুতি সম্বলিত চটকদার কিছু ফেসবুক স্ট্যাটাস কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে। এ জাতীয় প্রতিশ্রুতিতে বিভ্রান্ত না হয়ে শিক্ষার্থীদের যথাসময়ে যাবতীয় বকেয়া পরিশোধ করার জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।