• আজ মঙ্গলবার, ৬ আশ্বিন, ১৪২৮ ৷ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ৷

গাইবান্ধায় বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি

gai
❏ শনিবার, জুন ২৭, ২০২০ রংপুর

রবিউল ইসলাম, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ কয়েকদিনের বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে বেড়েই চলেছে গাইবান্ধার নদ-নদীর পানি। ফলে নদ-নদীর পানি বিপদসীমার উপরে উঠে ভাসাতে শুরু করেছে তীরবর্তী এলাকার শত শত মানুষকে।

মহামারী করোনার সংকটের মধ্যেই বন্যার আর্বিভাবে চিন্তার যেন শেষ নেই গাইবান্ধার বানভাসি মানুষের। পাট,সবজি সহ ফসলি ক্ষেত তলিয়ে গেছে মানুষের। বাড়ীর চারিদিকে পানি আসতে শুরু করেছে নদী তীরবর্তী মানুষদের। পানি বৃদ্ধির সাথে পাল্লা দিয়ে শুরু হয়েছে নদী ভাঙ্গন। সাঘাটা উপজেলার ভরতখালী ইউনিয়নের উল্যা বড়মতাই এলাকায় ব্যাপক ভাঙ্গন শুরু হয়েছে।

এছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ২৪টি পয়েন্টে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এ নদ-নদীর পানি আগামী কয়েকদিনে আরো বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড।

ব্রহ্মপুত্র নদের পানি শনিবার (২৭জুন) গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার তিস্তামুখ পয়েন্টে বিপদসীমার ২২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গাইবান্ধা সদরের ঘাঘট নদীর পানি শহর রক্ষা বাঁধ পয়েন্টে বিপদসীমার ২১সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

এছাড়া তিস্তা ও করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় তিস্তার পানি ২৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে এবং গোবিন্দগঞ্জে করতোয়ার পানি ৩.৫৬সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকার ফলে নদ-নদী সংলগ্ন নিম্নাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত কয়েকদিনের বর্ষণ ও উজানের ঢলের কারণে কয়েকদিন থেকে গাইবান্ধার নদ-নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত আছে। আগামী কয়েকদিনেও নদ-নদীগুলোতে ব্যাপক পানি বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন :

আপনার জেলার সর্বশেষ সংবাদ জানুন