করোনা উপসর্গ: নাকে সর্ষের তেল দিয়ে ডিউটিতে শিলিগুড়ি পুলিশ

১:৫৭ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুন ২৮, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- করোনা মহামারিতে দিশেহারা সারা বিশ্ব। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে কোটির ঘর। এখনো ভ্যাকসিন আবিষ্কার করতে পারেননি চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। কিন্তু একের পর এক টোটকা নিয়ে হাজির হচ্ছেন অনেকেই। প্রচার করছেন, এমন টোটকায় সারবে করোনা।

সম্প্রতি শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার ত্রিপুরারি অর্থব বাহিনীর সদস্যদের সরিষার তেল ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছেন। বলেছেন, কাজে যোগ দেয়ার আগে দুই ফোটা সরিষার তেল দিতে হবে নাকে। এতে শ্বাসকষ্টজনিত রোগের সমস্যা অনেকটাই দূর হবে।

শুধু নাকে সরিষার তেল দিলেই হবে না। খাবারের পাতেও থাকতে হবে সরিষার তেল। ভাত, ডাল, ভাজার সঙ্গে পুলিশ ক্যান্টিনে তেলে মাখা আলুর ভর্তা মাস্ট! এমনকি সালাদেও সরিষার তেল থাকতে হবে। পুলিশ কমিশনারের এমন বার্তা প্রতিটি থানায় পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

শিলিগুড়ি পুলিশ জানায়, তেল মাখা আলুর ভর্তা আর সালাদ খেলে গলায় কোনও সমস্যা থাকলে তা কেটে যাবে। এছাড়া সকাল বা বিকেলের টিফিনের মেনুতেও আছে সরিষার তেলের ব্যবহার। পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ, চানাচুরের সঙ্গে তেল দিয়ে মুড়ি মাখা৷ সেই সাথে নিয়মিত গরম জলে ভাপ নেওয়া, নিয়মিত গার্গল করার সঙ্গে লেবু জল বা তুলসি চা খাওয়াটাও বাধ্যতামূলক শিলিগুড়ি পুলিশ মহলে।

এর আগে রামদেবও দাবি করেছিলেন নাকের ফুটোয় সরিষার তেল দিলেই মরবে করোনা। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ নিয়েছিলেন রামদেব।

সেখানে তিনি দাবি করেন, বয়স্করা বিশেষ করে যাদের হাইপার টেনশন ও হার্টের সমস্যা রয়েছে, তারা যদি ৩০ সেকেন্ড নিঃশ্বাস বন্ধ করে থাকতে পারেন, তবে বুঝে নিতে হবে তাদের শরীরে করোনা নেই।

একইভাবে কম বয়সীদের ক্ষেত্রে ১ মিনিট শ্বাস বন্ধ রেখে এই পরীক্ষা চালানো যেতে পারে। এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। এরপর তিনি বলেন বলেন, যোগের পাশাপাশি নাকের ছিদ্রে দু’ফোঁটা সরিষার তেল দিলে, শ্বাসনলিতে থাকা করোনা ভাইরাস পেটে চলে যাবে। আর সেখানে গেলেই অ্যাসিডে জীবাণুগুলো মারা পড়বে।