সংবাদ শিরোনাম
নান্দাইলে বাস চাপায় নারী নিহত | ২০২১ সালে খুলে দেয়া হবে স্বপ্নের পদ্মাসেতু: রেলমন্ত্রী | সিঁদ কেটে তুলে নিয়ে শিশু ধর্ষণকারী আলী হোসেন গ্রেফতার | সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জন্য সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী | হাসপাতালের পরীক্ষার বিল ডাকাতির মতো: মেয়র আতিক | টাঙ্গাইলে খাটের নিচে মিলল ১শ’ বোতল ফেন্সিডিল, গ্রেফতার ১ | কক্সবাজারের ৮ থানার ওসিসহ ২৬৪ জন পুলিশ কর্মকর্তাকে একযোগে বদলি | পঞ্চগড়ে মায়ের সাথে অভিমান করে মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা | রাজবাড়ীতে আ.লীগ নেতাকর্মীদের পুলিশি হয়রানির অভিযোগ, প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন | কুড়িগ্রামের অবৈধ কর্ম-কান্ডের দায়ে আ‘লীগ নেতা আটক, গণধোলাই! |
  • আজ ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চীনের সঙ্গে উত্তেজনা চরমে, লাদাখে ৮০ হাজার সেনা মোতায়েন ভারতের

১২:১৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ৪, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- চীনের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে চরম উত্তেজনার মধ্যে শুক্রবার লাদাখে আরও সেনা মোতায়েন করল ভারত। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী লাদাখ থেকে ফিরে আসার পরেই সৈন্য সংখ্যা আরও একপ্রস্থ বাড়িয়ে দিল ভারতীয় সেনা।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় লাল ফৌজের সংখ্যা বাড়িয়ে ভারতের উপর চাপ সৃষ্টি করার কৌশল নিয়েছে চীন। ভারতও পাল্লা দিয়ে, সেনা মোতায়েন করে চলেছে। লাদাখে একসঙ্গে এত সেনা মোতায়েন অতীতে কখনও করেনি ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময় জানায়, চীনকে বার্তা পাঠাতে শুক্রবার লাদাখে আরও এক ডিভিশন সেনা মোতায়েন করেছে ভারত। ফলে পূর্ব লাদাখে ভারতের সেনা সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল সব মিলিয়ে চার ডিভিশন।

মে মাসের আগে এ সীমান্তে মাত্র এক ডিভিশন মোতায়েন ছিল। এক ডিভিশনে থাকে ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার সেনা। অর্থাত্‍,‌ চার ডিভিশন মিলিয়ে ভারতের প্রায় ৮০ হাজার সেনা মোতায়েন করা হলো পূর্ব লাদাখে।

লাদাখে নতুন মোতায়েনকৃত ডিভিশন এসেছে উত্তর প্রদেশ থেকে। শুধু সেনা সমাবেশ নয়, সেইসঙ্গে সমরাস্ত্র, যুদ্ধের সরঞ্জামও বাড়ছে।

এর আগে শুক্রবার লাদাখে দাঁড়িয়ে সরাসরি চীনকে কড়া বার্তা দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাঁর সঙ্গে ছিলেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত এবং সেনাপ্রধান এম এম নারাবনে। তবে এ সময় মোদি চীনের নাম নেননি। ভারতীয় সেনাদের বীরত্বের প্রশংসাও করেছেন তিনি।

লাদাখে ভারতীয় সেনাদের মাঝে দাঁড়িয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগ্রাসনের দিন শেষ। এখন প্রগতির যুগ। এগিয়ে যাওয়ার সময়। ইতিহাস সাক্ষী আগ্রাসনকারীরা সবসময় ধ্বংস হয়েছে। যারা আগ্রাসনের নীতিতে চলছে, তারা শান্তির পক্ষে বিপদের কারণ।’