সংবাদ শিরোনাম
জীবনসঙ্গিনী খুঁজে নিলেন চাহাল | এবার ১২০০ কোটি রুপি ব্যয়ে আকাশছোঁয়া ‘হনুমানের মূর্তি’ তৈরি হচ্ছে ভারতে | লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা বৃদ্ধি, আবারো চীনা সেনা মোতায়েনের দাবি ভারতের | হাজিদের পাথর নিক্ষেপে পদদলিত হয়ে মৃত্যু থামিয়ে ছিলেন এই বাংলাদেশি ইঞ্জিনিয়ার | লামায় ৯ বছরের শিশু ধর্ষিত, ধর্ষক আটক | পিরোজপুরে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের দুই ভুয়া কর্মকর্তা গ্রেপ্তার | বঙ্গমাতার জন্মদিন উপলক্ষে তানোরে সেলাই মেশিন বিতরণ | ‘করোনার চেয়েও বড় সংকট হয়তো সামনে আসছে’- বিল গেটস | সিফাতের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ | কাউখালীতে পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী ধর্ষণের চেষ্টা, লম্পট গ্রেফতার |
  • আজ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় একদিনে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্ত ১০৫ জন

৭:০৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ৪, ২০২০ দেশের খবর, রংপুর

ফরহাদ আকন্দ, নিজস্ব প্রতিবেদক: গাইবান্ধায় গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১০৫ জন করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। গাইবান্ধা হতে প্রেরিত নমুনা রংপুর ল্যাব ছাড়াও ঢাকার বিভিন্ন পিসিআর ল্যাব এবং বগুড়া টিএমএসএস ল্যাবে পরীক্ষায় এ ফল পাওয়া গেছে।

গাইবান্ধা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২ ও ৩ জুলাই গাইবান্ধা থেকে সংগৃহীত ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল পাঁচ শতাধিক নমুনা। এই নমুনার ফল গাইবান্ধা এসে পৌঁছায় ৩ জুলাই (শুক্রবার) রাতে। এতে ৯৫টি নমুনার ফলাফল করোনা পজিটিভ এসেছে।

এছাড়া রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৩ জুলাই নমুনা পরীক্ষা করে নতুন ৯ জন পজেটিভ ফলাফল এসেছে। এছাড়া বগুড়া টিএমএসএস থেকে ১ জনের পজেটিভ ফলাফল এসেছে। গাইবান্ধায় এই রংপুর ল্যাবে শনাক্ত ৯ জন, টিএমএসএসে ১ জন ও ঢাকার ল্যাবে শনাক্ত ৯৫ জন মিলিয়ে জেলায় ২৪ ঘণ্টায় ১০৫ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন।

এর আগে একদিনে এত বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি গাইবান্ধায়। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে চিকিৎসক, পুলিশ ও নার্সসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

এই শনাক্ত ১০৫ জন উপজেলা ভিত্তিক বিশ্লেষণ করলে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ৪৩ জন, সদর উপজেলায় ২৫ জন, সাঘাটা উপজেলায় ০৭ জন, ফুলছড়ি উপজেলায় ০৭ জন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ১০ জন, পলাশবাড়ী উপজেলায় ১০ জন ও সাদুল্যাপুর উপজেলায় ০৩ জন। নতুন আক্রান্ত ১০৫ জন নিয়ে গাইবান্ধায় মোট শনাক্ত সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৯৩ জনে।

উপজেলা ভিত্তিক বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, গোবিন্দগঞ্জে সর্বাধিক ১৭৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া সদরে ৬৯ জন, পলাশবাড়ীতে ৪৫ জন, সাদুল্যাপুরে ৩৬ জন, সাঘাটায় ২৫ জন, সুন্দরগঞ্জে ২৮ জন এবং ফুলছড়ি উপজেলায় ১৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৯ জন মারা গেছেন, ১৩৭ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে এবং ২৪৭ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ তথ্যে নিশ্চিত করে গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফ ‘সময়ের কণ্ঠস্বর’ কে জানান, ১৫ জুন থেকে ২৫ জুন নাগাদ পাঠানো ৫৫৩টি নমুনা আর ৩ জুলাই রংপুর ও বগুড়া থেকে পাওয়া ২৮টি মোট ৫৮১টি নমুনার রিপোর্ট গতকাল ৩রা জুলাই (শুক্রবার) একত্রে পাওয়া গেল।

তিনি আরও জানান, শনাক্তদের অধিকাংশই এখন সুস্থ হওয়ার পথে। প্রতিদিনের রিপোর্ট প্রতিদিন পাওয়া গেলে হয়তো একত্রে এতবেশী সংখ্যক পজিটিভ রোগী পাওয়া যেত না। আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক হয়ে সবাইকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন।

Skip to toolbar