সংবাদ শিরোনাম
জামিনে এসে প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে মসজিদের ইমাম ‘উধাও’ | লিবিয়া উপকূলে নৌকা ডুবির ঘটনায় বাংলাদেশীসহ উদ্ধার-২২ | নোয়াখালীতে ছুরিকাঘাতে গৃহবধূ হত্যা | লালমনিরহাটে ট্রাকের ধাক্কায় ট্রেন ধরাশায়ী! | ‘দেশের সবগুলো নদী খনন করে বাঁধ নির্মাণ করা হবে’- পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী | শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে মাগুরায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ | “সৃষ্টিকর্তার রহমতে বাংলাদেশে ব্যাপক হারে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হয়নি” | ভারতের ভ্যাকসিন সমগ্র মানবজাতির কল্যাণে ব্যয় করা হবে: মোদি | ‘সিগারেট খেয়েছি, ড্রাগস নয়..ড্রাগস নিত সুশান্ত’- সারা আলী খান | ৫ অক্টোবর ঢাকায় আসছেন ভারতের নতুন হাইকমিশনার |
  • আজ ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কোটালীপাড়ায় বৃদ্ধা মাকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা

১২:১২ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুলাই ৫, ২০২০ ঢাকা, দেশের খবর

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জে কোটালীপাড়া উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কুলসুম বেগম (৬৮) নামে এক বৃদ্ধাকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে তার সৎ সন্তানেরা।

গত শনিবার উপজেলার রাধাগঞ্জ ইউনিয়নের রাজিন্দারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশ শনিবার রাতেই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ৪ নারীকে গ্রেফতার করেছে।

হত্যার শিকার কুলসুৃম বেগম রাজিন্দারপাড় গ্রামের সবর আলী সিকদারের দ্বিতীয় স্ত্রী।

কুলসুম বেগমের ভাই স্কুল শিক্ষক কালাম ফকির জানান, সৎ ছেলেদের সাথে জমিজমা নিয়ে কুলসুম বেগমের বিরোধ চলে অসিছিল। কুলসুম বেগমকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য গত শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে সৎ ছেলে আলাউদ্দিন সিকদার, স্ত্রী রোকেয়া বেগম, মেয়ে লিমা সিকদার ও ভাই রিপন সিকদার কলসুম বেগমকে পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে। এ সময় কুলসুম বেগমের নিজের ২ ছেলে ও ছেলের বউয়েরা তাকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা তাদেরকেও মারপিট করে।

ওই স্কুল শিক্ষক আরো জানান, তার বোন কুলসুমকে উদ্ধার করে প্রথম কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও বিকেলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত ৮ টার দিকে সে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। আমরা এই নির্মম হত্যাকান্ডের বিচারচাই।

কুলসুম বেগমের সৎ ছেলেরা পলাতক থাকার কারণে তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, এ ঘটনায় শনিবার রাতেই কুলসুম বেগমের ছেলে স্বপন সিকদার বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। রাতেই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত ৪ নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। প্রাথমিকভাবে আমরা পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছি।