ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিলকাণ্ডে ২৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে শাস্তির সুপারিশ

৩:০২ অপরাহ্ণ | রবিবার, জুলাই ৫, ২০২০ জাতীয়
biddut

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিলকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ বিতরণ সংস্থার ২৯০ কর্মকর্তা-কর্মচারীর শাস্তির সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া এখনও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়নি পিডিবি ও পানি বিদ্যুতায়ন বোর্ড।

রোববার (০৫ জুলাই) অনলাইন সংবাদ ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান বিদ্যুৎ সচিব ড. সুলতান আহমেদ।

এর আগে, বিদ্যুৎ বিলকাণ্ডে জড়িতদের চিহ্নিত করে বিতরণ কোম্পানিগুলো। এ ঘটনায় চার প্রকৌশলীকে বরখাস্তের পাশাপাশি অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়েছে সম্পৃক্ত নির্বাহী প্রকৌশলীদের। এছাড়া ৩৬ প্রকৌশলীকে ১০ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নির্দেশ ডিপিডিসি। একই অভিযোগে ১৩ জন মিটার রিডার এবং একজন মিটার রিডার সুপারভাইজারকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়েছে।

এছাড়া ৩৬টি জোনাল অফিসের নির্বাহীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক (অপারশেন) ও মুখপাত্র হারুন আর রশিদ বলেন, ৪ হাজার তিনশ ৩০ জন গ্রাহকের অভিযোগের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

করোনায় সাধারণ ছুটির সময়ে মার্চ ও এপ্রিল মাসের অনুমান নির্ভর বিল তৈরিদের জড়িতদের চিহ্নিত করতে ২৫ জুন টাস্কফোর্স গঠন করে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়। এছাড়াও বিতরণ কোম্পানিগুলোকে নিজস্ব তদন্ত কমিটির মাধ্যমে দোষীদের বের করে আনতে সাতদিনের সময় বেঁধে দেয় সরকার। বিদ‌্যুৎ বিভাগের বেঁধে দেওয়া সাতদিন সময় শেষ হয় গত বৃহস্পতিবার (২ জুলাই)।

সবচেয়ে বেশি অভিযোগ এসেছে ডিপিডিসির বিরুদ্ধে। ডিপিডিসি এই ঘটনা তদন্তে কোম্পানির নির্বাহী পরিচালক (আইসিটি)-কে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি করে। শুক্রবার রাতে এই কমিটি প্রতিবেদন জমা দেয়। এই প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে বরখাস্ত ও কারণ দর্শানোর সিদ্ধান্ত নেয় ডিপিডিসি।