• আজ ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বান্দরবানে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নারী নিহত, ছেলে শিশু আহত

৩:৩০ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুলাই ১১, ২০২০ চট্টগ্রাম, দেশের খবর

এস.কে খগেশপ্রতি চন্দ্র খোকন, বান্দরবান প্রতিনিধি- বান্দরবানের রােয়াংছড়ি উপজেলার সামুক ঝিড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলিতে শান্তিলতা তঞ্চঙ্গ্যা (৩৫) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। তার বাড়ি উপজেলার নাথিং ঝিড়ি এলাকায়।

এ সময় আহত হয়েছেন ওই নারীর ৭ বছরের এক ছেলে শিশু। আহত শিশুকে উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের ৩৪ নম্বর বেডে ভর্তি করা হয়েছে।

আর নিহত শান্তিলতার মরদেহ এখনও পর্যন্ত রাখা হয়েছে রােয়াংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টার দিকে জুম চাষ করে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে এই ঘটনা ঘটে ।

নিহতের স্বামী রাংগােয়াই তঞ্চঙ্গ্যা জানান, জুম চাষ শেষে পায়ে হেঁটে নিজ বাড়িতে ফিরছিলাম। এসময় সামুক ঝিড়ি এলাকায় আসলে আমি, আমার স্ত্রী ও সন্তানকে সামনের দিকে এগােতে দিয়ে প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিতে যায়। এময় সময় হঠাৎ করে গুলির শব্দ শুনি। তাড়াতাড়ি স্ত্রী ও সন্তানের কাছে গিয়ে দেখি গুলিবিদ্ধ হয়ে পড়ে আছে আমার স্ত্রী ও শিশু সন্তানটি। পরে তাদেরকে স্থানীয়রা ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

এদিকে উপজেলার নাথিং ঝিড়ি এলাকার বাসিন্দা খােকন তঞ্চঙ্গ্যা জানান, হঠাৎ করে আমরা গুলির শব্দ শুনতে পাই। গুলির আওয়াজ শুনে গ্রামবাসীরা এদিকে ওদিক ছােটাছুটি করতে লাগল। অনেকে গ্রাম ছেড়ে পাশের পাহাড়ে পালাতে লাগল। গতকাল শুক্রবার সেনাবাহিনীর সদস্যরা শিশুটিকে উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। পাহাড়ের গাছের ফাঁক থেকে সন্ত্রাসীরা গুলি চালায়। তবে তারা কি পােষাক পরিহিত ছিল সেটি ভাল করে চেনা যায়নি বলে জানান ঘটনাস্থলের আশেপাশে থাকা জুম চাষীরা।

রােয়াংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদ কবির জানান, গুলিতে একজন নারী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। লাশটি রােয়াংছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাখা হয়েছে। কোন সন্ত্রাসীগােষ্ঠীর গুলিতে নিহত হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।

এদিকে, গত ৭ জুলাই বান্দরবানের রাজবিলা ইউনিয়নের বাঘমারা বাজার পাড়ায় অতর্কিত হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)-এমএন লারমার বা সংস্কার দলের ছয়জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয় তিনজন। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে এমএন লারমা বা সংস্কার দলের তিনজন কেন্দ্রীয় নেতা ও জেলা শাখার সভাপতি ছিলেন।

তবে এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হলেও পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

Skip to toolbar