ভারতের শুকনো মরিচবাহী প্রথম পার্সেল ট্রেন বেনাপোল বন্দরে

৮:৩৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, জুলাই ১৩, ২০২০ খুলনা
Benapol

মহসিন মিলন, বেনাপোল প্রতিনিধি   : বেনাপোল বন্দর দিয়ে  ভারত থেকে এই প্রথম রেলের র‌্যাকে শুকনা মরিচের বড় চালান আমদানি হয়েছে।  ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ থেকে শুকনো মরিচ বহনকারী প্রথম চালান পার্সেল ট্রেন যোগে বেনাপোল বন্দরে  এসে পৌঁছেছে সোমবার বিকেলে।

ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ ৩৮০ টন শুকনো মরিচ ভর্তি ১৮টি উচ্চ ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন পার্সেল ভ্যানের একটি বিশেষ পার্সেল ট্রেন পাঠায় বাংলাদেশে। ভারত থেকে শুকনো মরিচবাহী প্রথম পার্সেল ট্রেন এপার্সেল এক্সপ্রেসটি (এসপিই) ভারতের গুন্টুরের রেড্ডিপালেম থেকে বাংলাদেশের বেনাপোল পর্যন্ত ১৩৭২ কিলোমিটারের বেশি পথ অতিক্রম করে। পণ্য চালনটির আমদানীকারক রাফসান ট্রেডার্স,সাতক্ষীরা ও হাফিজ কর্পোরেশন,ঢাকা  বেনাপোলের আলম এন্টারপ্রাইজ ও মোশারেফ ট্রেডার্স সিএন্ডএফ এজেন্ট পন্য চালানটি ছাড় করার জন্য প্রয়োজণীয় ডকৃুমেন্টস সাবমিট করেছে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের অতিরিক্ত কমিশনার ড. নেয়ামুল ইসলাম বলেন, ভারত থেকে ৩৮০ টন শুকনো মরিচ ভর্তি ১৬টি উচ্চ ধারণক্ষমতাসম্পন্ন পার্সেল ভ্যান সমন্বিত একটি বিশেষ পার্সেল ট্রেন বেনাপোলে বন্দরে এসেছে। যাতে দ্রুত পণ্য চালনটি শুল্কয়ন ও খালাশ করা হয় সেই জন্য কাস্টমস কর্মকর্তারা কাজ করেছে। তবে মরিচের এই চালান থেকে সরকার ৭০ লক্ষা টাকার রাজস্ব আদায় করেছে।

ভারতীয় হাইকমিশন সরবরাহ শৃঙ্খলার এই বিঘœ হ্রাস করতে বাংলাদেশ রেল কর্তৃপক্ষকে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পার্সেল ট্রেন পরিষেবা সহজতর করার প্রস্তাব দেয়। বাংলাদেশ রেল কর্তৃপক্ষ তাতে সম্মতি জানানোর পরে প্রথম পার্সেল ট্রেন সেবার জন্য পণ্য একত্রিত করা হয়। এই পার্সেল ট্রেন পরিষেবা উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেছে ভারতীয় হাইকমিশন।

Skip to toolbar