সংবাদ শিরোনাম

শরীয়তপু‌রে পা‌রিবা‌রিক দ্ব‌ন্দে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যামাগুরায় কৃষি পণ্য উৎপাদনে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘চাঁদের হাট’ সমন্বিত কৃষি খামার প্রকল্পহেফাজতের যুগ্ম-মহাসচিব খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ূবী গ্রেপ্তারকরোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রীপিরোজপুরে একমাসে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত ১৮০০ জনবিমানবন্দরে অস্ত্র-গুলিসহ চিকিৎসক দম্পতি আটকটাঙ্গাইলে গৃহবধূকে রাতভর গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ১নওগাঁয় যৌতুকের দাবীতে গৃহবধুকে নির্যাতন, ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে উদ্ধারনোয়াখালীর সুবর্ণচরে প্রবাসীর স্ত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু, শ্বশুর-দেবর পলাতকহেফাজত নেতা আতাউল্লাহসহ তিনজন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • আজ বৃহস্পতিবার। গ্রীষ্মকাল, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। বিকাল ৪:২২মিঃ

ফরিদপুরে স্কুলছাত্রীকে ‘ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ’, শিক্ষক গ্রেফতার

⏱ | মঙ্গলবার, জুলাই ১৪, ২০২০ 📁 ঢাকা, দেশের খবর

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৫) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘ প্রায় সাড়ে চার বছর ধরে যৌন নির্যাতন ও ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে সদরপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ওই শিক্ষককে একমাত্র আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে।

আজ মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে ওই শিক্ষককে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। ওই শিক্ষকের নাম মো. মিজানুর রহমান (৩৮)। তিনি সদরপুর উপজেলার সতেররশি গ্রামের বাসিন্দা।

ওই ছাত্রীর সাথে কথা বলে এবং মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সাল থেকে স্কুলের ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে সখ্যতা গড়ে তোলে। এরপর ওই শিক্ষক বিয়ের প্রলোভনে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সদরপুর উপজেলার পরিত্যক্ত একটি ভবনে নিয়ে ধর্ষণ করে মোবাইলে নগ্ন ভিডিও ধারণ করে।

এরপরে বিভিন্ন সময়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে মিজানুর রহমান। এক পর্যায়ে ওই শিক্ষক ওই ছাত্রীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন। অতঃপর ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে গত সোমবার রাতে সদরপুর থানায় ওই শিক্ষককে আসামি করে মামলা করেন।

পরে গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ওই শিক্ষকের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে। অবশ্য ওই শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান তার বিরুদ্ধে আনা ছাত্রীর সকল অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে জানান।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মশিউর রহমান জানান, গ্রেপ্তার হওয়া ওই শিক্ষকের মুঠোফোন ও ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ডিভাইস জব্দ করা হয়েছে।

এসআই মো. মশিউর রহমান আরও বলেন, আজ ওই ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হবে। মঙ্গলবার ওই শিক্ষককে জেলার মূখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনে ওই শিক্ষককে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।