সংবাদ শিরোনাম

ঠাকুরগাঁওয়ের আলোচিত সেই লিচু গাছ পরিদর্শনে ইউএনও ও কৃষি অফিসারসালথায় তান্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান পাঁচ দিনের রিমান্ডেকরোনায় একদিনে আরও ৯৮ জনের মৃত্যুনিউমাকের্ট থেকে হেফাজতের আরও এক নেতা গ্রেফতারমেলান্দহে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন, ড্রেজার মেশিনে আগুন দিয়ে ধ্বংসউৎপাদন বাড়াচ্ছি, শিগগিরই বাংলাদেশ টিকা পাবে: দোরাইস্বামীশরীয়তপু‌রে পা‌রিবা‌রিক দ্ব‌ন্দে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে স্বামীর আত্মহত্যামাগুরায় কৃষি পণ্য উৎপাদনে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘চাঁদের হাট’ সমন্বিত কৃষি খামার প্রকল্পহেফাজতের যুগ্ম-মহাসচিব খালেদ সাইফুল্লাহ আইয়ূবী গ্রেপ্তারকরোনার তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • আজ বৃহস্পতিবার। গ্রীষ্মকাল, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সন্ধ্যা ৬:১৮মিঃ

শাহজাহান সিরাজের ঐতিহাসিক ভূমিকা জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে: ফখরুল

⏱ | মঙ্গলবার, জুলাই ১৪, ২০২০ 📁 জাতীয়
saa

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ সাবেক বন ও পরিবেশমন্ত্রী, বিএনপির সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ শাহজাহান সিরাজের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শোকবার্তায় মির্জা ফখরুল বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শাহজাহান সিরাজ ছিলেন দেশের একজন ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্ব। স্বাধিকার, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে স্বাধীনতা উত্তর গণতন্ত্র পুনরুজ্জীবনের আন্দোলনে তার ঐতিহাসিক ভূমিকা জাতি চিরদিন স্মরণ রাখবে। জাতীয় মুক্তির সংগ্রামে কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলায় তার সাহসী ভূমিকা এক অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে দেশবাসীর কাছে। তার প্রস্থান এই ক্রান্তিকালে দেশে গভীর রাজনৈতিক শূন্যতার সৃষ্টি করলো।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দেশ ও গণতন্ত্র সুরক্ষার আন্দোলনে আপসহীন নেতৃত্ব তাকে উদ্বুদ্ধ করেছিল। মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে তিনি মাতৃভূমির প্রতি ঋণ পরিশোধ করেছিলেন। বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী দর্শনই ছিল তার রাজনৈতিক চেতনার ভিত্তি ও সকল কর্মকাণ্ডের উৎস। জনকল্যাণের মহান ব্রত নিয়ে রাজনীতি করতেন বলেই তিনি এলাকাবাসীর নিকট ছিলেন আপনজন। শাহজাহান সিরাজ জনপ্রতিনিধি ও মন্ত্রী হিসেবে সরকারের দায়িত্ব পালনের সময় দেশের টেকসই উন্নয়নে রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

মির্জা ফখরুল বলেন, অভিজ্ঞ পার্লামেন্টারিয়ান হিসেবেও তিনি জাতীয় সংসদে ভূমিকা রেখেছিলেন জনগণের অধিকার রক্ষায়। বহুদলীয় গণতান্ত্রিক চেতনাকে দৃঢ়ভাবে বুকে ধারণ করে মানুষের বাক-ব্যক্তি ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার স্বপক্ষে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিএনপির প্রতিটি কর্মসূচিতে তিনি সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছেন। দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষার অঙ্গীকারে শহীদ জিয়া প্রবর্তিত ধারাকে অক্ষুন্ন রাখতে তিনি ছিলেন অবিচল, এ ক্ষেত্রে তার অবদান বাংলাদেশের মানুষের মনে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। দেশের এই দুর্দিনে তার মতো একজন অভিজ্ঞ ও আদর্শনিষ্ঠ রাজনীতিবিদের পৃথিবী থেকে চিরবিদায়ে আমি গভীরভাবে শোকাহত হয়েছি।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ শাহজাহান সিরাজ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। বুধবার সকাল ১১ টায় টাঙ্গাইল এলেঙ্গায় প্রথম জানাজা, বাদ জোহর দ্বিতীয় জানাজা কালীহাতী উপজেলায়, বাদ এশা গুলশান সোসাইটি মসজিদে তৃতীয় জানাজা শেষে বনানী কবর স্থানে তাকে দাফন করা হবে।