• আজ শুক্রবার। গ্রীষ্মকাল, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। রাত ১২:১২মিঃ

খুনের পর ফাহিমের কার্ড দিয়েই গার্লফ্রেন্ডের জন্য কেনাকাটা করে ঘাতক!

⏱ | রবিবার, জুলাই ১৯, ২০২০ 📁 আন্তর্জাতিক
fahimm

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও বাংলাদেশি তরুণ উদ্যোক্তা ফাহিম সালেহ খুনের দায়ে তার ব্যক্তিগত সহকারী টাইরেস ডেভন হাসপিলকে (২১) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নৃশংস এ খুনের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ যখন মরিয়া তখন গার্লফ্রেন্ডকে নিয়ে সময় কাটাচ্ছিলেন তিনি। প্রস্তুতি নিচ্ছিল জন্মদিনের পার্টি উদযাপনের।

শনিবার প্রকাশিত ভিডিওতে ঘাতক টাইরিস হাসপিলকে শপিংয়ে যাওয়ার জন্য ক্যাব খুঁজতে দেখা যায়। কিছুক্ষণ পর সামান্য এগিয়ে ফাহিমের ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ২২ লেখা দুইটি বেলুন কেনে সে। পুলিশের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ফাহিম সালেহকে হত্যার পর খুনি টাইরিস হাসপিলকে ওই তরুণীর সঙ্গে সময় কাটাতে দেখা যায়। অন্যান্য কেনাকাটার পাশাপাশি বান্ধবীর জন্মদিনের বেলুনও কিনে ২১ বছরের নৃশংস এই খুনি।

নিউইয়র্ক টাইমস-এর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফাহিমের কাছ থেকে আগে ৯০ হাজার ডলার চুরি করেছিল হাসপিল। ফাহিম তখন তাকে নিজের প্রতিষ্ঠান থেকে বরখাস্ত করেছিলেন। তবে তার বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে কোনও অভিযোগ করেননি, বরং হাসপিল যেন কিস্তিতে টাকাটা ফেরত দিতে পারে, তার পথ বাতলে দিতে চেয়েছিলেন তিনি।

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে পুলিশ সূত্রকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, গোয়েন্দারা ফাহিমের ফোনে পাওয়া একটা টেক্সট মেসেজে এই টাকা চুরির ব্যাপারটি সম্পর্কে অবগত হওয়ার পর হাসপিলের ওপর নজরদারি শুরু করে। এরপরই বেরিয়ে আসতে শুরু করে রোমহর্ষক এই হত্যাকাণ্ডের ইতিবৃত্ত।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৪ জুলাই নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটন এলাকার নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ফাহিম সালেহ’র ক্ষতবিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ১৭ জুলাই এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয় তার সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী হাসপিলকে।