• আজ ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা, ঘাতক স্বামী আটক

১১:৪৬ অপরাহ্ন | সোমবার, জুলাই ২০, ২০২০ রাজশাহী
hotta

পাবনা প্রতিনিধিঃ পাবনার চাটমোহরে ধারালো ছুরি দিয়ে কল্পনা রানী পাল (৩৮) নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ওই গৃহবধূর স্বামী নিরঞ্জন পাল ওরফে নিরুকে আটক করে। পরে পুলিশের জিজ্ঞসাবাদে হত্যাকান্ডের বিষয়টি স্বীকার করে ঘাতক স্বামী।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার হরিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। সোমবার এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ২৬ বছর আগে একই উপজেলার গুনাইগাছা গ্রামের মনোরঞ্জন পালের মেয়ে কল্পনা রানীর সাথে হরিপুর গ্রামের নিরঞ্জনের বিয়ে হয়। নিরঞ্জন একজন চা বিক্রেতা। দুই ছেলে দিনাজপুরের বসবাস করায় তারা স্বামী-স্ত্রী বাড়িতে বসবাস করতেন। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে কল্পনা রানীকে বেধড়ক মারধর করতো নিরঞ্জন। বারে বারে বাবার বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দিতো। রোববার এই বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়।

পুলিশের জিজ্ঞসাবাদে ঘাতক নিরঞ্জন জানায়, রাগের বশবতি হয়ে স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশ্যে রাত সাড়ে ৮টার দিকে গোপনে বাড়িতে যান নিরঞ্জন। এ সময় প্রবল বৃষ্টি হচ্ছিল। শোবার ঘরে ঢুকেই স্ত্রী কল্পনা রানীকে মারধর করতে থাকেন। এক পর্যায়ে বিছানায় ফেলে মুখ চেপে ধরে ধারালো ছুরি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে পুনরায় নিজের চা দোকানে গিয়ে দোকানদারি করতে থাকে। পরে রাত পৌনে ১১টার দিকে বাড়ি ফিরে স্থানীয়দের ডেকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা কল্পনা রানীকে হত্যা করেছে বলে জানায় নিরঞ্জন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) সজীব শাহরীন, থানার ওসি আমিনুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন। তবে এ সময় উপস্থিত নিরঞ্জনের হাতে কাটা দাগ দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে অকপটে স্ত্রী হত্যার কথা ম্বীকার করে নিরঞ্জন। এদিকে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে।

ঘটনার ব্যাপারে চাটমোহর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, নিরঞ্জন পাল খুব বদমেজাজী টাইপের লোক। হাতে কাটা চিহ্ন দেখে তাকে সন্দেহজনক ভাবে আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে সে অকপটে স্ত্রী হত্যার কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় থানায় ওই গৃহবধুর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়েরের করেছেন। সোমবার নিরঞ্জনকে গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।