• আজ ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সীমান্তে ৪০ হাজার সৈন্য মোতায়েন করেছে চীন, প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতও

১০:১১ পূর্বাহ্ন | বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৩, ২০২০ আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের সঙ্গে বার বার বৈঠকের পরও পূর্ব লাদাখ থেকে পুরোপুরি সৈন্য প্রত্যাহার করেনি চীন। নিয়ন্ত্রণরেখায় এখনও চীনের প্রায় ৪০ হাজার সৈন্য অবস্থান করছে।

ভারতের দাবি, মুখে এক আর মনে আরেক নীতি মেনে চলছে বেইজিং। বারবার দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে নিয়ন্ত্রণ রেখায় শান্তি স্থাপন ও সৈন্য সরিয়ে নেওয়ার কথা বললেও এখনও পূর্ব লাদাখ সীমান্তে ৪০ হাজারের মতো চীনা সেনা সদস্য রয়েছে।

একটি গোপন প্রতিবেদন থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবি ভারতের। একটি সূত্র বলছে, গোগরা ও হটস্প্রিং এলাকায় এখনও ভারতীয় সীমানার মধ্যেই অবস্থান করছে চীনা সৈন্যরা।

এমনকি যে প্যাংগং লেক নিয়ে এতো বিতর্ক সেই লেকের ফিঙ্গার ৫ পয়েন্ট থেকে এখনও সরছে না চীনের সৈন্যরা। ফিঙ্গার ৪ থেকে ফিঙ্গার ৮ পর্যন্ত এখনও যেতে পারছেন না ভারতীয় সেনাবাহিনী।

চীনের এই পদক্ষেপ খুব আশ্চর্যের নয় বলেই মনে করছেন ভারতের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তারা। তাদের দাবি, চীনকে পাল্টা জবাব দিতে নতুন করে প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতও। অতীত থেকে শিক্ষা নিয়েই ভবিষ্যতের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করছে ভারতীয় সেনারা।

বর্তমানে সীমান্তের পরিস্থিতি শান্ত থাকলেও চীনের বিষয়ে সতর্ক রয়েছে ভারত। চীনের সৈন্যদের কথা রাশিয়ায় তৈরি বেশ কিছু যুদ্ধবিমান গোয়া থেকে দেশের উত্তরাঞ্চলে ভারতীয় বিমানঘাঁটিতে সরিয়ে আনা হয়েছে।

যদিও একটা মহল থেকে দাবি করা হয়েছে যে, লাদাখ সেক্টরের বিমানঘাঁটিতেও বেশ কয়েকটি মিগ ২৯-কে যুদ্ধবিমান এনে রাখা হয়েছে। সেনা সূত্রের খবর অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আলোচনা করেই চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) জেনারেল বিপিন রাওয়াত সেনাবাহিনীকে এই নির্দেশ দিয়েছেন।

সীমান্তবর্তী এলাকা গালওয়ানে ১৫ জুন মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ভারত ও চীনের। এতে নিহত হয় ২০ জন ভারতীয় সেনা। তার পর তিন বার আলোচনায় বসেন দুই দেশের সেনাকর্মকর্তারা। উভয়ই পূর্ব লাদাখ থেকে সেনা সরিয়ে নিতে সম্মত হয়। কিছু এলাকা থেকে সেনা সরাতেও শুরু করে চীন। ভারতও সেনা সরায়।

তবে ডেপসাং সমতল অঞ্চল, গোগরা এবং প্যাংগং হ্রদ বরাবর ফিঙ্গার অঞ্চলে এখনো চীনের সেনা মজুত রয়েছে। অথচ কথা হয়েছিল, এই এলাকাগুলোয় দুই দেশেরই সেনা থাকবে না। এগুলো বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। ভারতীয় সূত্রের খবর, এসব এলাকায় এখনো অন্তত ৪০ হাজার চীন সেনা রয়েছে। তাদের আধুনিক অস্ত্র, অস্ত্র বহনে সক্ষম যান রয়েছে।

দুই দেশের সেনাকর্তাদের শেষ বৈঠক হয়েছিল ১৪-১৫ জুলাই। তখন দু’‌জনেই সেনা সরাতে সম্মত হয়। অথচ খবর, তার পর থেকে আর সেনা সরায়নি চীন। পূর্ব লাদাখের দু’‌টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গোগরা, হট স্প্রিংয়ে নির্মাণও শুরু করেছে চীন সেনাবাহিনী।