• আজ মঙ্গলবার। গ্রীষ্মকাল, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। সকাল ৭:৪৮মিঃ

তাহিরপুরে কবরস্থান রক্ষায় এগিয়ে এলেন একজন সাবেক চেয়ারম্যান

১২:৩৬ অপরাহ্ন | শুক্রবার, জুলাই ২৪, ২০২০ সিলেট

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: প্রতি বছরেই বর্ষায় ভাঙ্গনের মুখে পরে সংকিন্ন হচ্ছে কবর স্থানের সীমানা। এবছরও পর পর তিনবার বন্যায় ভাঙ্গন দেখা দেওয়ায় কেউ এগিয়ে না আসলেও সেই কবর স্থানের ভাংঙ্গন রক্ষায় এগিয়ে এসেছেন সাবেক এক  চেয়ারম্যান।

তিনি সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস আলম আখঞ্জী।  কবর স্থানটি উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের শিবরামপুর গ্রামে অবস্থিত।

 বুধবার (২২জুলাই) দুপুরে মানবিকতার তাগিদে নিজস্ব অর্থায়নে তিনটি নৌকা বুঝাই করে বালু ও বস্তা নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ও ভেঙ্গে যাওয়া কবরস্থানটি মেরামত করেন।

জানাযায়,উপজেলার এই কবরস্থানটি বর্ষাকালে একমাত্র উচু স্থান। ভারতের চেরাপুঞ্জি ও সুনামগঞ্জে ভারি বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পানিতে তৃতীয় দফায় বন্যা সৃষ্টি হয়েছে। আর এই বন্যায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শিবরামপুর গ্রামের কবর স্থানটি। এই কবর স্থানটি আশ পাশের কয়েকটি মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল।

এছাড়াও এই সময়ে কবরস্থানের চার পাশে পানি থাকায় হাওরের ডেউয়ে ভেঙে যাচ্ছে। এই কবরস্থান ডুবে বা ভেঙ্গে গেলে ১০/১৫টি গ্রামের মানুষের শেষ আশ্রয় স্থল বা সমাধিস্থল মানুষের কবর দেওয়ার আর কোন ব্যবস্থা থাকে না। যেতে হবে অন্য স্থানে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানান,নিজ উদ্যোগে, নিঃর্স্বাথ ভাবে কবর ভাংঙ্গন রোধে বালুসহ বস্থা দিয়ে,উদার মনের পরিচয় দিয়েছেন তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস আলম আখঞ্জী। মানবিক কাজ করার জন্য ধন্যবাদ জানাই। মুসলিম সম্প্রদায়ের শেষ ঠিকানার স্থান কবরস্থান। সেই কবরস্থানের ভাংঙ্গন রোধে বালুসহ বস্তা দিলেন সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস আলম আখঞ্জী।আমাদের এলাকার ১০/১৫ গ্রামের একটি মাত্র কবরস্থানটি । এলাকাবাসীর স্বার্থে আমাদের এই কবরস্থানটি পাকাকরণ করার জন্য দাবী জানাচ্ছি ।

 সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস আলম আখঞ্জী বলেন, সবাই একদিন চলে যেতে হবে, যেখানে চিরকাল থাকতে হবে সেই স্থানটি ভেঙে যাবে, চোখের সামনে, এটা কেমন কথা, তাই আমার স্বার্ধ মত মেরামত করার বালু ও বস্থা নিয়ে মেরামত করেছি। সবাই শেষ আশ্রয় স্থলটিকে মেরামত করার জন্য এগিয়ে আসুন।