• আজ শুক্রবার। গ্রীষ্মকাল, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ। ২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ। দুপুর ১:৪৪মিঃ

আত্মসমর্পনকৃত ২৮৪ জলদস্যুর হাতে নগদ অর্থ ও ঈদ সামগ্রী তুলে দিলো র‍্যাব-৮

⏱ | শনিবার, জুলাই ২৫, ২০২০ 📁 খুলনা, দেশের খবর

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোংলায় সুন্দরবনের দস্যুতা ছেড়ে ভালপথে আসা আত্মসমর্পনকারী ২৮৪জন জল ও বন দস্যুদের হাতে নগদ অর্থ ও ঈদ সামগ্রী তুলে দিলেন র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক আতিকা ইসলাম।

বাগেরহাটের মোংলা ফুয়েল ঘাটে এক সময়ের সুন্দরবনের ত্রাস এ সকল বন দস্যুদের বিভিন্ন বাহিনী থেকে আত্মসমর্পনকারী দস্যুদের হাতে এ ঈদ সামগ্রী তুলে দেন বরিশাল র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা।

দেশের ম্যানগ্রোভ সুন্দরবনের রয়েছে রয়েল বেঙ্গল টাইগার, চিত্রা হরিন, হরেক রকমের বন্যপ্রানী ও নদী-খালে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। কিন্ত এক সময় পুরো সুন্দরবন জুড়ে রাজত্ব কায়েম করতো বড় বড় কয়েকটি বন ও জলদস্যু গ্রুপ।

এ দস্যুরা বনের মধ্যে জেলেরা পাশ-পারমিট নিয়ে মাছ আহরনে গেলেই তাদের অপহরন করে মোটা অংকের টাকা মুক্তিপন আদায় করতো এসকল দস্যুরা। শুধু মুক্তিপন নয়, জেলে বহরে হামলা ও লুটপাট চালিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ ও মুল্যবান মালামাল লুট করে নিতো তারা। জেলেরা মুক্তিপনের ধার্যকৃত টাকা দিতে অস্বিকার করলে তাদের উপর নেমে আসতো অমানুষিক নির্যাতন।

এরপরই বেগবান হয় সুন্দরবনে র‌্যাবসহ আইনশৃংখ্যলা রক্ষা বাহিনীর অভিযান। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে র‌্যাব ২২৩টি অভিযানে ৫০৭ জলদস্যু গ্রেফতদার, ১৫৫৬টি আগ্নেয়াস্ত্র ও বিপুল পরিমান গোলাবরুদ উদ্ধার করে। এসময় কালীন র‌্যাব বন ও জলদস্যুর সাথে বন্দুক যুদ্ধে ১৩৫জন দস্যু নিহত হয়েছে।

যার ফলে এদের বিরুদ্ধে মোংলা, রামপাল, শরনখোলা, মোড়েলগঞ্জ, দাকোপসহ বিভিন্ন থানায় রয়েছে অসংখ্য মামলা। তাই সরকার সাধারণ ক্ষমার আওতায় এনে দস্যুদের দস্যুতা ছেড়ে ভাল পথে ফিরে আসার ঘোষণা দেয়ায়, র‌্যাবের দেয়া তথ্যানুযায়ী সুন্দরবন উপকুলীয় অঞ্চলে ২০১৬ সালের ৩১ মে মাষ্টার বাহিনীর আত্মসমর্পনের মাধ্যমে শুরু হওয়া পর একে একে ২৭টি বাহিনীর সদস্যরা আত্মসমর্পন করতে শুরু করে। গত ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর দস্যু মুক্ত সুন্দরবন ঘোষণা করেন সরকার।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক আতিকা ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন যাবত প্রায় ২৭টি দস্যু বাহিনীর সদস্যরা সুন্দরবনের দস্যুতা করে আসছিল। সরকারের নিদের্শনায় এ বাহিনীর লোকজন দস্যুতা ছেড়ে ভাল পথে ফিরে আসে প্রায় ৪শ’র অধিক জল ও বন দস্যু সদস্যরা। তাই ফিরে আসা এসকল মানুষদের সমাজে ভালভাবে বসবাস ও চলাচলের জন্য র‌্যাব এর পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় সহায়তা করে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৮ এর আওতাধীন ৩টি জেলায় বাগেরহাটের মোংলায় ১৭৮জনসহ খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা থেকে সুন্দরবনের আত্মসমর্পনকৃত মোট ২৮৪ জন জলদস্যু পরিবারকে নগদ অর্থ ও ঈদ সামগ্রী এবং করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী উপকরণ বিতরণ করে তারা।

আত্মসমর্পনকৃত বনদস্যু ও স্থানীয় জনসাধারণেল মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনামূলক উপকরন বিতরণ করা হয়।

দস্যুদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরন অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন র‌্যাব-৮ এর অপারেশন কর্মকর্তা এ এসপি মুকুর চাকমাসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও র‌্যাব সদস্যরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।