• আজ ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন এমপি ইসরাফিল

◷ ৯:৫৩ অপরাহ্ন ৷ সোমবার, জুলাই ২৭, ২০২০ জাতীয়
israfel

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন নওগাঁ-৬ আসনের এমপি ইসরাফিল আলম। সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে গ্রামের বাড়ি রানীনগরের গোনা গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে তার মায়ের কবরের পাশে তার লাশ দাফন করা হয়। এর আগে বাদ আসর ঝিনা গ্রামের ঈদগাহ ময়দানে দুই দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা থেকে হেলিকপ্টার যোগে বিকেল ৩টার দিকে তাঁর লাশ নওগাঁর রানীনগর উপজেলায় আনা হয়। সেখান থেকে লাশবাহী গাড়ীযোগে জন্মভূমি ঝিনাগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় তাঁর কফিনে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। বিকেলে বাদ আছর ঝিনা ঈদগাহ ময়দানে দুই দফায় জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

জানাজায় নওগাঁ জেলা সদর আসনের এমপি ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দীন জলিল, সাবেক এমপি আব্দুল মালেক, জেলা প্রসাশক হারুন অর-রশিদ, পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান, রাণীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন হেলাল, আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ এলাকার দলীয় নেতাকর্মী, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, প্রসাশন এবং সর্বস্তরের লোকজন অংশগ্রহণ করেন।

এসময় বক্তারা বলেন, সদা হাস্যোজ্জল এ ব্যক্তিটি সব সময় গঠনমূলক চিন্তা-ভাবনা লালন করতেন। এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডে ছিলেন নিবেদিত। সন্ত্রাসের জনপদকে সন্ত্রাসমুক্ত ও মাদকমুক্ত করতে তাঁর ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। তিনি অত্যন্ত বিদ্যানুরাগী ছিলেন। এতো ব্যস্ততার মাঝেও তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য নিয়মিত কোর্স করে অনেক ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সম-সাময়িক বিষয় নিয়ে টক শো-তে অংশগ্রহণ করে নিজের যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে সক্ষম হয়েছেন। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারে ব্যাপক উৎসাহী ছিলেন তিনি। অসময়ে উনার চলে যাওয়ায় দেশের বিশেষকরে নওগাঁর অপূরণীয় ক্ষতি হলো।

প্রসঙ্গত, শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে বেশ কয়েকদিন যাবত রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত দুদিন থেকে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় সোমবার সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

এর আগে গত ২৩ জুন ইসরাফিল আলমের মা এসেদা রহমানের মৃত্যু হয়। মায়ের মৃত্যুর ১ মাসের মাথায় তিনি চলে যান না ফেরার দেশে। এদিকে প্রিয় নেতাকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে নেতাকর্মীরা।