🕓 সংবাদ শিরোনাম
  • আজ রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ ৷ ৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ৷

প্রথম ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন করোনায় মৃত ডা. মঈনের পরিবার

drmoin
❏ বুধবার, জুলাই ২৯, ২০২০ আলোচিত বাংলাদেশ

সময়ের কণ্ঠস্বর ডেস্কঃ করোনা রোগীদের সেবায় নিয়োজিত থেকে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়াদের মধ্যে প্রথম ক্ষতিপূরণ পেলেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক মো. মঈন উদ্দিন পরিবার। বুধবার (২৯ জুলাই) ক্ষতিপূরণের ৫০ লাখ টাকা মঞ্জুরির চিঠি হাতে পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডা. মঈন উদ্দিনের স্ত্রী ডা.চৌধুরী রিফাত জাহান।

সূত্র জানায়, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ সোমবার (২৭ জুলাই) ৫০ লাখ টাকা মঞ্জুরি দিতে চিঠি পাঠিয়েছে অর্থ বিভাগেরই প্রধান হিসাব কর্মকর্তা বরাবরে। অর্থ বিভাগের যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ আবু ইউসুফ স্বাক্ষরিত চিঠিতে অনুরোধ ক্রমে নির্দেশনা, ডা: মঈনের স্ত্রীর কাছে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তর করবেন অর্থ বিভাগের ড্রইং অ্যান্ড ডিসবার্সিং অফিসার (ডিডিও)।

ডা: মঈনের স্ত্রী ডা. চৌধুরী রিফাত জাহান, চিঠি প্রাপ্তি নিশ্চিত করে বলেন, তবে টাকা পেতে আরও কিছু প্রক্রিয়া আছে, সেগুলো শেষ করতে হবে আগেই।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সেবা দেওয়ার কাজে নিয়োজিত থেকে যারা নিজেরাও আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন, সরকার তাঁদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ প্রদান শুরু করেছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সেবায় সরাসরি কর্মরত ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী সহ মাঠ প্রশাসন, আইন–শৃঙখলা রক্ষাকারী বাহিনী, সশস্ত্র বাহিনী এবং প্রত্যক্ষভাবে নিয়োজিত প্রজাতন্ত্রের অন্য কর্মচারীদের ক্ষতিপূরণ দিতে গত ২৩ এপ্রিল অর্থ বিভাগ যে পরিপত্র জারি করে, সেটি অনুসরণ করে দেওয়া হচ্ছে ক্ষতিপূরণ।

এর আগে গত ২৭ এপ্রিল ক্ষতিপূরণ চেয়ে প্রথম আবেদন করেন মঈন উদ্দীনের স্ত্রী ডা. চৌধুরী রিফাত জাহান। পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তিনি আক্রান্ত হন বলে চৌধুরী রিফাত জাহানের আবেদনপত্রে সুপারিশ করেন এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ মো.ময়নুল হক। ডা. মঈন উদ্দিন ছিলেন পঞ্চম গ্রেডের সরকারি কর্মচারী।

উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মঈন উদ্দীনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। অবস্থার অবনতি ঘটলে ৭ এপ্রিল তাকে সিলেট নগরীর শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আইসোলেশনে রাখা হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে পরিবারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন গত ১৫ এপ্রিল শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ডা. মঈন।